১০ জানুয়ারি ভারতে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু

১০ জানুয়ারি ভারতে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু

বিশ্বজুড়ে দাপট দেখাচ্ছে করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন। ওমিক্রন আতঙ্কে বিশ্বের বেশির ভাগ দেশই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। এ তালিকায় রয়েছে ভারতও। আগামী ১০ জানুয়ারি করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রথম দিকে স্বাস্থ্যকর্মী, সম্মুখসারির যোদ্ধা ও ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিদের বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে।

বড়দিন উপলক্ষে শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) রাতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি এ ঘোষণা দিয়েছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি ভাষণে মোদী বলেন, ‘এখনো করোনা চলে যায়নি। ভারতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্টে (ওমিক্রন) আক্রান্তদের খোঁজ মিলছে। তবে, করোনা মোকাবিলায় দেশের স্বাস্থ্য বিভাগ প্রস্তুত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ১০ জানুয়ারি করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে। প্রথম দিকে স্বাস্থ্যকর্মী, সম্মুখসারির যোদ্ধা ও ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিদের বুস্টার ডোজ দেওয়া হবে। এছাড়া ৩ জানুয়ারি থেকে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। এর মাধ্যমে স্কুলে পাঠদান কার্যক্রমকে স্বাভাবিক থাকবে। ওমিক্রনে নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য দেশটির জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মোদী। মোদি বলেন, ওমিক্রনে আক্রান্ত হওয়ার খবরে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সতর্ক থাকুন, মাস্ক পরুন ও হাত ধোয়া অব্যাহত রাখুন। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। পর্যায়ক্রমে তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি ভারতে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। সেই থেকে এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট ৩ কোটি ৪৭ লাখ ৮১ হাজার ৩৮০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর এ পর্যন্ত দেশটিতে মারা গেছেন ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৫২০ জন।

অনলাইন ডেস্ক