সেন্টমার্টিনে আটকেপড়া পর্যটকরা ফিরছেন টেকনাফে

বৈরী আবহাওয়া ও সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলার পর ফের কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। এতে স্বস্তি ফিরে পেয়েছে আটকেপড়া প্রায় ৩ হাজার পর্যটক।

মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টায় টেকনাফ দমদমিয়া জেটিঘাট থেকে পর্যটক নিয়ে ৭টি জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) টেকনাফ অঞ্চলের ট্রাফিক সুপার ভাইজার জহির উদ্দিন ভূঁইয়া। তিনি বলেন, বৈরী আবহাওয়া ও ৩ নম্বর সতর্ক সংকেতের কারণে সোমবার টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছিল। কিন্তু সোমবার সন্ধ্যায় আবহাওয়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক এবং ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলায় মঙ্গলবার থেকে জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়।

জহির উদ্দিন ভূইয়া বলেন, কেয়ারি সিন্দাবাদ, কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন, এসটি শহীদ সুকান্ত বাবু, এমভি সালাম, বে ক্রুজ, এমবি পারিজাত ও এমভি ফারহান নামের জাহাজগুলো দুপুরে সেন্টমার্টিন পৌছাবে। এ ৭টি জাহাজে প্রায় ২৬’শ মতো আটকেপড়া পর্যটক সেন্টমার্টিন থেকে টেকনাফে ফিরিয়ে আনা হবে। আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালকের পক্ষে আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপিতে বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা নেই। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর সমূহকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। তবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছিল। টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী বলেন, আবহাওয়া অফিস ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করায় সোমবারটেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এতে ২ হাজারের বেশি পর্যটক দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপে আটকা পড়েন। আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় নিষেধাজ্ঞা তোলার সঙ্গে সঙ্গে মঙ্গলবার টেকনাফ থেকে সকল জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। জাহাজ চলাচল যেহেতু স্বাভাবিক হয়েছে তাই কর্তৃপক্ষ আশা করছে দ্বীপে আটকেপড়া সব পর্যটক মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যে নিরাপদে টেকনাফ ফিরবেন।

Related Posts