অতিশিগরই চালু হচ্ছে ঢাকা-তাসখন্দ বিমান চলাচল

শিগগিরই চালু হচ্ছে ঢাকা-তাসখন্দ সরাসরি বিমান চলাচল। প্রাথমিকভাবে কোড শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে দিল্লিতে ট্রানজিট দিয়ে যাত্রী পরিবহন করবে বাংলাদেশ বিমান ও উজবেক এয়ারওয়েজ।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিডা কার্যালয়ে এক সভায় এ তথ্য দেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। তিনি জানান, গ্যাস-নির্ভর কিছু শিল্প কারখানা উজবেকিস্তানে স্থানান্তরেরও পরিকল্পনা করছে সরকার। গেল এক দশকে বহরে বেশ কিছু নতুন এয়ারক্রাফট যোগ করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। উদ্দেশ্য স্বল্প দূরত্বের নতুন নতুন আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে বিমানের আর্থিক সংকট দূর করা। সেই ধারাবাহিকতায় বিমান এবার পাখা মেলতে যাচ্ছে প্রায় ২০ বছর ধরে বন্ধ থাকা রুট, উজবেকিস্তানে। শিগগিরই এই রুটে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে বিমান। প্রাথমিকভাবে ঢাকা থেকে দিল্লি পর্যন্ত বিমানের ফ্লাইট, এরপর কোড শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে যাত্রীরা দিল্লি থেকে পৌঁছাবেন দেশটির রাজধানী তাসখন্দে গেল সেপ্টেম্বরে এক সপ্তাহের উজবেকিস্তান সফরের ফলোআপ নিয়ে আয়োজিত সভায় দেশটির সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেন ব্যবসায়ীরা। এসময়, উপদেষ্টা জানান, মজুদ কমে আসায় ভবিষ্যতে শিল্প কারখানায় গ্যাস সরবরাহে তৈরি হতে পারে সংকট, তাই এখনই ভাবতে হচ্ছে বিকল্প। প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, ওদের অনেক গ্যাস আছে। সেটা আমরা কীভাবে ব্যবস্থা করতে পারি সেটা আমাদের পরীক্ষা করে দেখতে হবে। আসছে নভেম্বরেই উজবেকিস্তান সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের সফরে, ঢাকায় কনস্যুলেট স্থাপনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ছাড়াও হতে পারে নতুন বাণিজ্য চুক্তি।