শান্ত যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে হারের কারণ জানালেন

শান্ত যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে হারের কারণ জানালেন

শেষ ৩০ বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রয়োজন ছিল ৬০ রান। তখনও শরিফুল ইসলাম ও মোস্তাফিজুর রহমানের তিন ওভার বাকি। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের পেস আক্রমণের নেতৃত্বে শরিফুল ও মোম্তাফিজরা আছেন। ডেথ ওভারে বাংলাদেশের সেরা অস্ত্র তারা। তারপরও যুক্তরাষ্ট্রের কোরে অ্যান্ডারসন ও হারমিত সিংকে তারা রুখতে পারেননি। দলের সেরা দুই বোলার নিজেদের শেষ তিন ওভারে খরচ করেছেন ৪৬ রান। ফলে শেষ ওভাবে প্রয়োজন পড়ে ৯ রানের। অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত তখন বল তুলে দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে। প্রথম বলে ছক্কা মারার পর বাকি ৩ রান করতে যুক্তরাষ্ট্রের লেগেছে দুই বল।

সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ৫ উইকেটের হারের পর ডেথ ওভারে পেসারদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে না পারার আক্ষেপ ঝরেছে অধিনায়ক শান্তর কণ্ঠে, ‘আমাদের স্পিনাররা ভালো বোলিং করেছে। শেষ ২-৩ ওভারে আমাদের পেসাররা পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। আশা করছি, পরের ম্যাচে তারা ঘুরে দাঁড়াবে।’

বোলিংয়ের আগে ব্যাটিংয়েও সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ। টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পর খুব বেশি রান পায়নি বাংলাদেশ দল। তাতে ২০ রানের আক্ষেপ করলেন শান্ত, ‘আমরা ভালো ব্যাটিং করিনি। শুরুটা ভালো করেছিলাম। তবে মাঝের দিকে বেশ কয়েকটি উইকেট হারিয়েছি। আমার মনে হয় আমরা আরও ২০ রান করতে পারতাম। তখন এটা বলার মতো একটা স্কোর হতো।’

হৃদয় ও মাহমুদউল্লাহ ছাড়া কয়েকমাস ধরেই বাংলাদেশের ব্যাটাররা ধুঁকছেন। ভালো উইকেটে না খেলার জন্য এমনটা হচ্ছে বলে মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তিনি বলেছেন, ‘আমি এটাকে ভুলের পুনরাবৃত্তি মনে করি না। জিম্বাবুয়ে সিরিজেও ভালো উইকেটে খেলিনি। তাই ব্যাটাররা ধুঁকছে। কিন্তু সবকিছুই আসলে মানসিকতার ব্যাপার। আমি আশা করছি ব্যাটাররা ছন্দে ফিরবে।’