লৌহজং বিএনপি নেতা আতাউরের মুক্তি দাবি ফখরুলের

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলা বিএনপির ৫৩ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার ও উপজেলা বিএনপি নেতা আতাউর রহমান ঢালীর মুক্তির দাবি জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (৬ মার্চ) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে গতকাল লৌহজং উপজেলা বিএনপির শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশ অতর্কিতে হামলা চালিয়ে প্রায় ২০ জন নেতাকর্মীকে আহত ও ৫৩ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। পুলিশ বিনা উসকানিতে বিএনপির কর্মসূচিতে হামলা চালিয়ে নেতাকর্মীদের আহত ও গ্রেফতার করে কারান্তরীণ করছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ঢাকা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, লৌহজং উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক শাহজাহান খান, সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান চাকলাদার অপু এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ৫৩ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা দায়ের, উপজেলা বিএনপি নেতা আতাউর রহমান ঢালীকে গ্রেফতার ও ২০ নেতাকর্মীকে আহত করার ঘটনা চলমান ভয়াবহ দুঃশাসনের আরও একটি দৃষ্টান্ত। ফখরুল বলেন, আওয়ামী সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বলেই তারা জনসমাগম দেখলেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে। তাই বিএনপিসহ বিরোধী দলের যেকোনো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দলীয় সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আওয়ামী গণবিচ্ছিন্ন সরকার অব্যাহত গতিতে দুঃশাসন ও বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে দেশকে নৈরাজ্যের অতলগহ্বরে নিক্ষেপ করেছে। সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় সকল ক্ষেত্রে চরম ব্যর্থতা আড়াল করতেই এ ধরনের জুলুম-নির্যাতনকে কৌশল হিসেবে বেছে নিয়েছে। কিন্তু জনগণ সরকারের দুঃশাসন প্রতিরোধে এখন ধেয়ে আসছে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি অবিলম্বে উল্লিখিত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার এবং লৌহজং উপজেলা বিএনপি নেতা আতাউর রহমান ঢালীর নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। আহত নেতাকর্মীদের আশু সুস্থতা কামনা করছি।

Related Posts