রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঘুমন্ত স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা

কক্সবাজারের টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‘পারিবারিক কলহের’ জেরে স্বামীকে দা দিয়ে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ উঠেছে স্ত্রীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্ত্রী সানজিদা বেগমকে (২৩) আটক করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।শুক্রবার (৮ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৩টায় টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের চাকমারকূল ২২ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি-২ ব্লকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান ১৬ এপিবিএন এর অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।

নিহত মো. ছৈয়দুর রহমান (৩২) টেকনাফের চাকমারকূল ২২ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি-২ ব্লকের হামিদুর রহমানের ছেলে। স্থানীয়দের বরাতে তারিকুল বলেন, ছৈয়দুর রহমানের সঙ্গে তার স্ত্রী সানজিদা বেগমের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হত।

শুক্রবার বিকেলে ছৈয়দুর রহমান নিজের ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। ঘুমন্ত অবস্থাতেই তাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে সানজিদা। তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে সানজিদা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা তাকে ধাওয়া দিয়ে ধরে ফেলে। আহত ছৈয়দুরকে উদ্ধার করে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
পুলিশ সুপার বলেন, খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এসময় স্থানীয়রা সানজিদাকে পুলিশের কাছে তুলে দেয়। পরে হাসপাতাল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে কী নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল পুলিশ নিশ্চিত নয় এবং এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে বলে জানান এপিবিএন এর এ কর্মকর্তা নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Related Posts