রুশ-ইউক্রেন: তৃতীয় দফা বৈঠক সোমবার

যুদ্ধ বন্ধে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে তৃতীয় দফা বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে আগামী সোমবার। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির এক সঙ্গীর বরাতে ওয়েবসাইট ইউক্রেইনিস্কায়া প্রাভদা এমন খবর দিয়েছে।ওই কর্মকর্তা বলেন, আমরা রুশ প্রতিনিধিদের মুখোমুখি হওয়ার অপেক্ষায় আছি। আগামী সোমবার (৭ মার্চ) আমরা বৈঠকে বসতে চাই। শনিবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা মিখাইল পডোলিয়াক বলেন, দুয়েক দিনের মধ্যে দুপক্ষের মধ্যে বৈঠক হতে যাচ্ছে।-খবর তাসের

ইউক্রেনের সঙ্গে বেলারুশের সীমান্ত শহর গোমেলে মস্কো-কিয়েভের প্রথম দফার বৈঠক হয়েছে। এতে প্রেসিডেন্ট পুতিনের সহযোগী ভ্লাদিমির মেডিনস্কি রাশিয়ার প্রধান আলোচকের ভূমিকা রেখেছেন। এরপর ৩ মার্চ বেলোভেজকায়া পুশচায়ে তাদের দ্বিতীয় দফার বৈঠক হয়েছে। এতে বড় ধরনের সফলতা না আসলে মানবিক করিডর গঠনে একমত হয়েছে দুপক্ষ।
এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি তুরস্কে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করতে সম্মত আছে। শনিবার (৫ মার্চ) পুতিনের সঙ্গে এক ফোনালাপে তাকে এমন কথা বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার বিরুদ্ধে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, তা যুদ্ধ ঘোষণার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শনিবার (৫ মার্চ) রাশিয়ার জাতীয় এয়ারলাইনস এয়ারোফ্লটের এয়ারহোস্টদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এমন মন্তব্য করেছেন।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, ইউক্রেনে উড়াল-নিষিদ্ধ এলাকা ঘোষণার অর্থ হচ্ছে, সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে পড়া, যা বিশ্বের জন্য বিপর্যয় নিয়ে আসবে। ইউক্রেনকে নাৎসিমুক্ত ও নিরস্ত্রীকরণের মাধ্যমে রুশভাষীদের রক্ষায় এই বিশেষ সামরিক অভিযান পরিচালনা করতে বলে তিনি মন্তব্য করেন। রাশিয়ায় কোনো সামরিক আইন জারির পরিকল্পনা নেই জানান পুতিন। তিনি বলেন, এসব পদক্ষেপ কেবল বহিরাগত আগ্রাসনের ক্ষেত্রে নেওয়া হয়। সামরিক তৎপরতার এলাকা নির্ধারণে এ আইন ব্যবহার হয়ে আসছে। কিন্তু আমাদের তেমন কোনো পরিস্থিতি নেই। আমাদের তেমন কিছু হবে না বলেই আশা করছি। পুতিন সামরিক আইন জারি করতে পারেন বলে গুজব শোনা যাচ্ছিল। এ ধরনের আইন জারি হলে তাতে সরকারি কার্যক্রমের নিয়ন্ত্রণ সামরিক বাহিনীর হাতে চলে যায়। এছাড়া সব ধরনের বেসামরিক আইনও স্থগিত করে দেওয়া হয়। পুতিন বলেন, ইউক্রেন ইস্যুতে কোনো দেশ উড়াল-নিষিদ্ধ অঞ্চল জারি করলে তারা সরাসরি যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছে বলে ধরে নেওয়া হবে।

Related Posts