রাজশাহীতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ভাংচুর ,নগদ অর্থ ছিনতাই, আহত ৩

রাজশাহীর বায়ায় জমি সংক্রান্ত বিবাদকে কেন্দ্র করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার সন্ধ্যার পর এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পিন্টু ও বাবলুর নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ তিনজনকে হত্যার উদ্দেশ্য দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে হামলা করে আহত করে নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। আহতদের মধ্যে ২জনকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নগরীর এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন,  এ ব্যাপারে জমির মালিকের ছেলে দোকানদার রাকিব হাসান বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সুত্র জানাগেছে, বায়া বাজারের আর.এস দাগ ০১নং তফসিল বর্ণিত সম্পত্তি নিয়ে আদালতে মামলা বিচারাধিন রয়েছে এবং উক্ত সম্পত্তিতে বিবাদীদের বিরুদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন আদালত। এরপরও পিন্টু, বাবলু,  মান্নান, ইন্তাজ এবং আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে প্রায় ২০ থেকে ২৫জনের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ পূর্ব পরিকল্পিতভাবে লোহার রড, জিআই পাইপসহ বিভিন্ন ধরণের দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে সংঘবদ্ধ হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যার পর দোকানে জোর পূর্বক প্রবেশ করে কীটনাশক ও ইলেক্ট্রনিক্সের দোকানে হামলাসহ ভাংচুর করে এ সময় দোকানের মালিকের ছেলে রাকিব হাসানকে মারধর শুরু করলে তার চিৎকারে চাচা শামিম হাদয়দার  ও চাচাতো ভাই শাকিনুর হাসান বাধা দিতে আসলে তাদেরকেও মারপিট শুরু করে এতে শামিম ও শাকিনের পা ভেঙ্গে যায় এবং বিভিন্ন স্থানে আঘাত প্রাপ্ত হয়। এসময় রাকিব হাসানের নিকট থাকা দোকানের প্রায় ৭৭হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে এবং শাকিন ও শামিমকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান জানান, এঘটনায় থানায় ১৮ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ৮থেকে ১০জনকে অজ্ঞাত আসামী করেএকটি মামলা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যহত রয়েছে।

Related Posts