রাজশাহীতে নারী দিয়ে প্রতারণা, গ্রেফতার ৪

রাজশাহীতে নারী দিয়ে প্রতারণা, গ্রেফতার ৪

রাজশাহীতে এক ব্যক্তিকে নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে অপহরণ, প্রাণনাশের হুমকি ও অর্থ দাবির অভিযোগে দুই নারীসহ চার প্রতারককে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল। সোমবার (১ নভেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে দুই নারী প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী রাত ৮টার দিকে তাদের দুই পুরুষ সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- নগরীর শাহমুখদুম থানার বড়বনগ্রাম বাগানপাড়া এলাকার মো. গাজী সালাউদ্দিনের ছেলে মো. সায়েম উদ্দিন শ্যাম (৩৫), বোয়ালিয়া থানাধীন হাদীরমোড় নদীরধার এলাকার মৃত দুলাল বিশ্বাসের ছেলে মো. পারভেজ (৩২), এয়ারপোর্ট থানার বায়া তেরিপাড়ার মো. বাপ্পী হোসেনের স্ত্রী মোসা. রাজিয়া সুলতানা সুমা (৩০) ও চারঘাট থানার হলিদাগাছি এলাকার মো. মামুনুর রহমান বাবুর স্ত্রী মোসা. শরিফা আক্তার সাথী (২৭)। মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) দুপুরে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আরেফিন জুয়েল গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ল্যান্স করপোরাল মো. শাহাদাত হোসেনের (৬০) সঙ্গে। বর্তমানে তিনি পবার নওহাটা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে গাড়িচালক হিসেবে কর্মরত। স্ত্রী অসুস্থ হওয়ায় গত ৩১ অক্টোবর গ্রামের বাড়ি নাটোরে গিয়ে ভাইয়ের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে রাজশাহী ফিরছিলেন। রাজশাহীর রেলগেট থেকে নওহাটা যাওয়ার জন্য অটোরিকশায় ওঠেন। সেসময় দুই নারী ওঠেন সেই অটোরিকশায়। অদূরে আরও দুই যুবক যাত্রীবেশে সেই অটোতে ওঠেন। পথে গল্প করতে করতে সুকৌশলে তারা জানতে পারেন তার কাছে মোটা অঙ্কের নগদ টাকা রয়েছে। পরে ওই দুই নারী নানা প্রলোভন দেখিয়ে অটোরিকশাটি বহরমপুরে নিয়ে যান ও তাদের বাসায় ঢুকতে শাহাদাতকে বাধ্য করেন। ‘পরে জোরপূর্বক শাহাদাতের কাপড় খুলে এক নারীর সঙ্গে নগ্ন ছবি তুলে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন তারা। ঘটনাটি জানাজানি করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিসহ পাঁচ লাখ টাকা দাবিও করেন তারা।’ এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, শাহাদাতের কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা তাৎক্ষণিক কেড়ে নেন প্রতারকরা। পরদিন (১ নভেম্বর) আরও ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন আনার জন্য। পরে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ডিবি পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে দক্ষতার সঙ্গে প্রথমে বিকেল ৪টায় টাকা নিতে আসা দুই নারী প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যে তাদের দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করাসহ নগদ ৪৭ হাজার টাকা উদ্ধার করতে সক্ষম হই। ‘জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছেন, তারা নগরীর বিভিন্ন স্থানে দু/এক মাসের জন্য বাড়িভাড়া নিতেন এবং সেখানে নারী দিয়ে প্রতারণার ফাঁদ পেতে অর্থ আদায় করতেন। এর আগেও বিভিন্ন স্থানে অনেক সহজ-সরল যুবক ও ব্যক্তিকে নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে অর্থ আদায় করেছেন স্বীকার করেছেন তারা।’ তিনি আরও বলেন, গ্রেফতার প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে রাজপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ সকালে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন ডেস্ক