রাজপথ দখলে হাতে লাঠি নিতে বললেন বিএনপির নেতারা

নয়াপল্টনে পূর্ব ঘোষিত বিক্ষোভ সমাবেশে কর্মীদের রাজপথ দখলের নির্দেশ দেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। জ্বালানি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দফায় দফায় দাম বাড়িয়ে সরকার জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করছে বলে অভিযোগ করেন নেতারা।

জ্বালানি তেল, গণপরিবহন ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে রাজধানীতে ব্যাপক শোডাউন করল বিএনপি। নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ পরিণত হয় মহাসমাবেশে। নাইটিঙ্গেল মোড় থেকে ফকিরাপুল, উভয়পাশের রাস্তায় বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। মিছিল, স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে পল্টন এলাকা।

সমাবেশে বিএনপি নেতারা বলেন, এখন থেকে আঘাত এলে পাল্টা আঘাত করা হবে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করার হুঁশিয়ারি তাদের।

 বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, আত্মরক্ষার্থে হাতে লাঠি চাই। যেখানে আঘাত করার সেখানে আঘাত করতে হবে। চলার পথে যেখানে হাত তুলতে হয়, সেখানে তুলবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে। নেতাকর্মীদের রাজপথ দখল নেয়ার নির্দেশ দেন।

তিনি আরও বলেন, এ সংগ্রাম ও লড়াই শুরু হয়েছে। এ লড়াই বেঁচে থাকার লড়াই। বাংলাদেশকে রক্ষা করার লড়াই। শুধু বিএনপির নয়, ১৮ কোটি মানুষকে রক্ষা করার লড়াই।


আগামী ২২ আগস্ট থেকে উপজেলা ও গ্রাম পর্যায়ে লাগাতার বিক্ষোভ কর্মসূচিরও ঘোষণা দেন বিএনপি মহাসচিব।


এদিনও সমাবেশে বসার জায়গা নিয়ে কেরানীগঞ্জ বিএনপি ও ছাত্রদল কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি ও চেয়ার ছেঁড়াছুড়ির ঘটনা ঘটেছে। সমাবেশকে ঘিরে নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিলেন বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য।

Related Posts