রাঙামাটিতে বুস্টার ডোজ প্রয়োগ শুরু

রাঙামাটিতে বুস্টার ডোজ প্রয়োগ শুরু

পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধী টিকার বুস্টার ডোজ প্রয়োগ শুরু হয়েছে।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) সকালে রাঙামাটি জেলারেল হাসপাতাল টিকা কেন্দ্রে ষাটোর্ধ্ব এক নারীকে টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে এই কার্যক্রমের সূচনা করা হয়। ষাটোর্ধ্ব ও ফ্রন্টলাইনারদের শুরুতে বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে জেলা সিভিল সার্জন ডা. বিপাশ খীসা জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক আমার বুস্টার ডোজ প্রয়োগ শুরু করেছি। প্রথম দফায় ফাইজার টিকা দিয়ে শুরু করা হয়েছে। আমাদের হাতে ১৮ হাজার ডোজ ফাইজারের টিকা মজুদ আছে। প্রথম দিনে একশ জনকে বুস্টার ডোজ প্রদান করা হবে। তবে বুস্টার ডোজ গ্রহণের পরও স্বাস্থ্যবিধি অবশ্যই মেনে চলতে হবে। এদিকে বুস্টার ডোজ দিতে পেরে সন্তুষ্টির কথা জানালেন টিকা গ্রহীতারা। এজন্য তারা সরকারকে ধন্যবাদ জানান। গত বছরের নভেম্বরের শেষ দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার অতি সংক্রামক নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর বাংলাদেশেও বুস্টার ডোজ দেওয়ার পরামর্শ দেয় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। এরপর গত ১৯ ডিসেম্বরে ৬০ জনকে পরীক্ষামূলকভাবে কোভিড টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়। সেখানে প্রথমে বুস্টার ডোজ নেন দেশে প্রথম করোনার টিকা গ্রহণকারী কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু ভেরোনিকা ডি কস্টা।যাদের টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পর অন্তত ছয় মাস পেরিয়েছে, তাদেরই এখন তৃতীয় ডোজ দেওয়া হবে। সেজন্য নতুন করে নিবন্ধনের প্রয়োজন হবে না। যারা তৃতীয় ডোজ পাওয়ার যোগ্য, তাদের কাছে এসএমএস চলে যাবে। বাস্থ্য অধিদপ্তর বুস্টার ডোজ দেওয়ার ক্ষেত্রে ফাইজার, অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও মডার্নার টিকা বেছে নিয়েছে।

অনলাইন ডেস্ক