যুদ্ধের প্রভাবে গাজায় আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে গর্ভপাত

যুদ্ধের প্রভাবে গাজায় আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে গর্ভপাত

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রভাবে নাটকীয়ভাবে গর্ভপাতের হার বেড়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে না পারায় এমন হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মানবিক সংস্থা কেয়ারের জরুরি পরিস্থিতিতে সুরক্ষা ও লিঙ্গ বিষয়ক আঞ্চলিক উপদেষ্টা নুর বেদউন। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ খবর জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম জেজেবেলকে নুর বেদউন আরও বলেন, ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় গাজার প্রায় হাসপাতাল ধ্বংস হয়ে গেছে। তাই চিকিৎসা সামগ্রীর স্বল্পতার কারণে ফিলিস্তিনি নারীরা গর্ভপাতের শিকার হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে নারীদের ইনফেকশনের ঝুঁকি বেড়ে গেছে।

অভাবনীয় হারে গর্ভপাতের কারণ উল্লেখ করে নুর বেদউন বলেন, গর্ভকালীন প্রয়োজনীয় খাদ্য ও পুষ্টির অভাবে গর্ভপাত হচ্ছে। তাছাড়া দুর্বল স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কারণেও এমন হচ্ছে।

গাজায় গর্ভবতী নারীর অবস্থা বর্ণনা করে ফিলিস্তিনের পরিবার পরিকল্পনা ও সুরক্ষা সমিতির নির্বাহী পরিচালক আম্মাল আওয়াদাল্লাহ বলেন, সন্তান প্রসব নিয়ে সব গর্ভবতী নারীই ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন। গাড়ি, টেন্ট ও আশ্রয় শিবিরের মতো জায়গায় সন্তান প্রসব করছেন ফিলিস্তিনি নারীরা।

যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজায় চিকিৎসা সামগ্রী ও অ্যানেস্থেসিয়া ছাড়াই সন্তান প্রসব ও সিজারের প্রভাব উল্লেখ করে আওয়াদাল্লাহ বলেন, চিকিৎসা সরঞ্জাম ও ওষুধ ছাড়া রক্তক্ষরণ এবং সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক বেশি।