• মঙ্গল. অক্টো ২৬, ২০২১

মেয়েদের লেখাপড়া বন্ধ রাখা ইসলামবিরোধী : ইমরান খান

সেপ্টে ২১, ২০২১

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, প্রতিবেশী আফগানিস্তানে নারীদের লেখাপড়া বন্ধ করে দেওয়া হলে, সেটা হবে সম্পূর্ণ ইসলামবিরোধী কাজ। ব্রিট্শি সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) তিনি এমন মন্তব্য করেন।

এ সময়ে আনুষ্ঠানিকভাবে পাকিস্তানের স্বীকৃতি পেতে হলে তালেবান সরকারকে যেসব শর্ত পূরণ করতে হবে—তাও তুলে ধরেন তিনি। তালেবান নেতৃবৃন্দের কাছে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠন এবং মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তানের নিরাপত্তার জন্য হুমকি, এমন সন্ত্রাসীদের লালন-পালন করতে পারবে না আফগানিস্তান।

গেল সপ্তাহে আফগানিস্তানের বালক বিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা শঙ্কার কথা বলে এখন পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ের বালিকা বিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়নি। কিন্তু পাকিস্তানি নেতা বলেন, আমি মনে করি, মেয়েরাও স্কুলে যেতে পারবেন।

বিবিসির সাংবাদিক জন সিম্পসনকে তিনি বলেন, তারা ক্ষমতায় আসার পর থেকে এখন পর্যন্ত যেসব বিবৃতি তালেবান দিয়েছে, তা সবই ইতিবাচক। আমি মনে করি, মেয়েদের স্কুলে যেতে দেবেন তারা। নারীদের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত করার ধারণা কখনোই ইসলামিক হতে পারে না। এটা ধর্মের সঙ্গে কোনোভাবেই যায় না।

আগস্টে কাবুলের পতন ১৯৯০-এর দশকে তালেবান শাসনের কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। তখন কট্টরপন্থী তালেবান নারী শিক্ষার ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে।

তালেবান নেতৃবৃন্দ বলছে, ইসলামিক আইনের গণ্ডির মধ্য থেকেই নারীদের অধিকার রক্ষা করা হবে।

গেল সপ্তাহে বালিকা বিদ্যালয় খুলে না দেওয়ার ঘটনায় আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। পরবর্তীতে তালেবান মুখপাত্র বলেন, দ্রুতই আফগান মেয়েরা তাদের স্কুলে ফিরতে পারবেন।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, নিরাপত্তার কারণে আপাতত মেয়েদের জন্য স্কুলের যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এসময় জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের তৎপরতা বন্ধে তালেবান প্রস্তুত বলেও জানান তিনি।

এদিকে আইএস ও তালেবানের উত্থানে আফগানিস্তানে দিনদিন উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে বলে মনে করছে সৌদি আরব।

আফগানিস্তানে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার কাবুলে সংবাদ সম্মেলেনের আয়োজন করে তালেবান। এসময় বিভিন্ন প্রশ্নের জাবাব দেন গোষ্ঠীটির মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ।

মেয়েদের স্কুলের শিক্ষা গ্রহণের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তালেবানের এই মুখপাত্র বলেন, নারীদের জন্য স্কুল খুলে দিতে কাজ করে যাচ্ছেন তারা। বলেন, শরীয়াহ আইন মেনে নারীদের শিক্ষা গ্রহণে বাধা হয়ে দাঁড়াবে না তালেবান। এসময় জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি দেন এই তালেবান নেতা।

জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, ইরাক-সিরিয়া থেকে আইএস নির্মূল হয়েছে। আফগানিস্তানে তাদের তেমন অস্তিত্ব নেই, শুধু কিছু জায়গায় চোরাগোপ্তা হামলা ছাড়া। সাধারণ আফগানরা তাদের সমর্থন করে না। আমাদের সেনারা তাদের প্রতিহত করতে পুরোপুরি প্রস্তুত। নারীদের স্কুলে ফিরিয়ে আনতে আমাদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি কর্ম পরিকল্পনা তৈরি করছে। শিগগিই তাদের জন্য স্কুর খুলে দেয়া হবে।

এরমধ্যেই দিনদিন আফগানিস্তানে মানবিক সংকট চরমে পৌঁছে যাচ্ছে। জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির তথ্যমতে, আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ে আফগানিস্তানের ৯৭ শতাংশ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যেতে পারে।

এরমধ্যেই দুর্ভিক্ষ এবং খরার কারণে হাজার হাজার আফগান নিরাপদ আশ্রয় খুঁজতে গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন। এ অবস্থায় বাস্তুচ্যুত আফগানদের জন্য বিদেশি সহায়তা চেয়েছে তালেবান।

এদিক ব্রিটিশ বাহিনীর জন্য কাজ করেছেন—আফগানিস্তানের এমন আড়াই শতাধিক দোভাষীর তথ্য যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ভুলবশত অন্য ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে বিবিসি। ওই ই-মেইলে দোভাষীদের নাম ও প্রোফাইল ছবি সংযুক্ত ছিল। এ ঘটনার জন্য যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ক্ষমা প্রার্থনা করেছে।