• মঙ্গল. অক্টো ২৬, ২০২১

ভেনেজুয়েলাকে ০-৩ গোলে উড়িয়ে দিল ব্রাজিল

জুন ১৪, ২০২১
ভেনেজুয়েলাকে ০-৩ গোলে উড়িয়ে দিল ব্রাজিল

কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা নাটকের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে কালোমানিকের দেশেই পর্দা উঠল লাতিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই কোপা আমেরিকা।

সেই ছন্দটা কোপা আমেরিকাতেও টেনে আনল তারা। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে ভেনেজুয়েলাকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিল সেলেকাওরা।

অবশ্য কোপার মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতার লড়াইয়ে পূর্ণশক্তি নিয়ে মাঠে নামতে পারেনি ভেনিজুয়েলা। ম্যাচের আগেই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন দলের সেরা আট খেলোয়াড়সহ ১৩ জন।

তাই খর্বশক্তির দল নিয়ে পরাশক্তি ব্রাজিলের মোকাবিলা করতে নামে তারা।

দুর্বল দল নিয়ে তিতের শিষ্যদের কাছে তেতো অভিজ্ঞতা হয়েছে ভেনেজুয়েলার। ব্রাসিলিয়ার মানে গারিঞ্চা ফুটবল স্টেডিয়ামে সোমবার বাংলাদেশ সময় ভোর তিনটায় ব্রাজিলের মুখোমুখি হয় ভেনেজুয়েলা। ম্যাচে নেইমারের অসাধারণ ফুটবল জাদু দেখেছে বিশ্ব।

তিন গোলের একটি নিজে করেছেন পেনাল্টি থেকে। বাকি দুটি গোলও হয়েছে তার এসিস্টে। তার করা কর্নার কিক থেকে প্রথম গোলটি এসেছে মার্কুইনহোসের পা থেকে। গ্যাব্রিয়েল হেসুসের করা গোলেও ছিল ব্রাজিলের পোস্টার বয়ের ছোঁয়া।

এদিন ব্রাজিলের অধিনায়ক ছিলেন ডফিল্ডার ক্যাসেমিরো। তাই অনেকটা নির্ভার হয়ে আপন মনে খেলেছেন পুরো মাঠজুড়ে।

এক কথায় বিশ্বজুড়ে ভক্ত-সমর্থকদের মন ভরিয়ে দিয়েছেন নেইমার। অনেকের মতে, নেইমারের কাছেই হেরে গেছে ভেনিজুয়েলা।

ম্যাচের ২৩তম মিনিটে প্রথম লিড এনে দেন মার্কুইনহোস।

নেইমারের কর্নার থেকে গোল লাইনের সামনে বল পেয়ে যান মার্কিনিয়োস। সঙ্গে থাকা ভেনেজুয়েলার খেলোয়াড়ের বাধার মুখেও বাম পায়ের দারুণ এক প্লেসিং শটে ভেনেজুয়েলার জালে বল জড়ান তিনি।

এর দুই মিনিট পর জালে বল পাঠান রিশার্লিসন। তবে অফসাইডের কারণে সেটি বাতিল হয়।

৩০তম মিনিটে ডি-বক্সে বল পেয়ে শট নেন নেইমার। তবে ব্যর্থ হন।

৩৯তম মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় ভেনেজুয়েলা। হোসে মার্তিনেসের ফ্রি কিক থেকে ফের্নান্দো আরিসতেগেইতার হেড সহজেই ফেরান গোলরক্ষক আলিসন।

যোগ করা সময়ে ভেনেজুয়েলার আরেকটি চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন তিনি।

১-০ স্কোরলাইনে বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধের ৬৪তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন নেইমার। দানিলোকে ইয়োহান কুমানা ফাউল করায় পেনাল্টি পেয়েছিল ব্রাজিল।

চোট কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফেরার পর এ নিয়ে টানা তিন ম্যাচে গোল পেলেন নেইমার।

৮৩তম মিনিটে দারুণ ড্রিবলিংয়ে বল পায়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন নেইমার। কাছের পোস্ট দিয়ে শটও নেন, কিন্তু এক জনের পায়ে লেগে একটুর জন্য বাইরে দিয়ে যায় বল।

৮৯ মিনিটে তৃতীয় গোল করে ব্রাজিল। এবারও গোলের নায়ক নেইমার। তার বাড়িয়ে দেয়া পাসকেই ভেনেজুয়েলার জালে জড়িয়ে দেন গাবিগোল খ্যাত গ্যাব্রিয়েল।

নির্ধারিত সময় শেষে ৩-০ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.