ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে প্রতারণা, গ্রেফতার ৫

ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারকচক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) বোয়ালিয়া থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সকাল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত উপশহর এলাকা ও নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- নগরীর মো. আদিলুজ্জামান আদিলের ছেলে মো. মোহসিন উজ জামান অমি (৩০), রাজপাড়া থানার বহরমপুর এলাকার মো. রিয়াজুল ইসলামের ছেলে মো. রিদুয়ান ইসলাম রুপ (২১), রাজশাহীর বাগমারা পশ্চিম পালোপাড়ার মো. আবুল কাসেমের ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন (২৫), বগুড়ার গাবতলী থানার সাহবাসপুর গ্রামের মো. রঞ্জু মিয়ার ছেলে মো. রাব্বি হাসান (২৮) ও জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল থানার দাশরা খানপাড়ার মো. এমদাদুল হকের ছেলে মো. আরাফাত হোসেন শুভ (২২)। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে নগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ‘কিছু ব্যক্তি নর্দান ইলেক্ট্রিসিটি অ্যান্ড সাপ্লাই লিমিটেডের (নেসকো) বিভিন্ন পদে চাকুরির জন্য সাধারণ জনগণের কাছে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাই। এ বিষয়ে ঢাকার মুগদা থানার উত্তর মুগদাপাড়ার মো. রইচ উদ্দিন মুন্সির ছেলে মোক্তাল হোসেন মোতালেব (৫৩) বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি মামলা করেন। মামলাটি যাচাই করে প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাই। পরবর্তীতে বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মনের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে শুক্রবার পর্যন্ত উপশহরসহ কয়েকটি স্থানে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে প্রতারকচক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।’ এসময় তাদের কাছে থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত চারটি ল্যাপটপ, একটি ডেস্কটপ, একটি প্রিন্টার, নেসকোর বিভিন্ন পদে চাকুরির ১৬টি ভুয়া নিয়োগপত্র, ২৪টি স্ট্যাম্প, নেসকোর লোগো সম্বলিতি একটি ব্যানার, ২০টি ভোটার আইডি কার্ড, নয়টি মোবাইলফোন ও একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা স্বীকার করেন, মো. মোহসিন উজ জামান অমি নিজেকে নেসকো লিমিটেডের সহকারী প্রকৌশলী পরিচয় দিয়ে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে টাকা নিতেন। অন্যদিকে, মো. রিদুয়ান ইসলাম কম্পিউটার প্রশিক্ষক ও নিয়োগপত্র তৈরির কাজগুলো করতেন। বাকিরা প্রতারণার কাজে তাদের সহায়তা করতেন।’ পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, ‘তাদের বিরুদ্ধে বোয়ালিয়া থানায় প্রতারণার মামলা করা হয়েছে। আজ তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

Related Posts