ভারতকে অতিরিক্ত কোন তেল দেবে না রাশিয়া

ভারতকে অতিরিক্ত তেল দেবে না রাশিয়া। কারণ ভারতীয় ক্রেতাদের দেয়ার মতো অতিরিক্ত কোনো তেল দেশটির কাছে নেই। এজন্য ভারতের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন দুটি কোম্পানির সঙ্গে নতুন করে চুক্তি স্বাক্ষর স্থগিত রেখেছে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি রোজনেফট। বিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অন্তত তিনটি সূত্রের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) এ

গত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। এর প্রতিক্রিয়ায় শাস্তিমূলক পদক্ষেপ হিসেবে মস্কোর ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলো।

নিষেধাজ্ঞার চাপে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেলের দাম পড়ে যায়। এ সুযোগে রাশিয়া থেকে সস্তায় অপরিশোধিত তেল কিনছে ভারত। এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ব্যারেল তেল কিনেছে দেশটির কোম্পানিগুলো। যা ২০২১ সালে আমদানি করা ভারতের মোট তেলের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশি।

আর সস্তায় কেনা অপরিশোধিত তেল পরিশোধন করে উৎপাদিত পেট্রল, ডিজেল স্থানীয় বাজারে বিক্রির পাশাপাশি বিদেশে রপ্তানি করে কোম্পানিগুলো অতিরিক্ত মুনাফা করছে। তবে সম্প্রতি তেল আমদানি দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা করছে তারা।
সস্তায় তেল কেনার সুযোগ নিতে নতুন করে আরও ছয় মাসের সরবরাহ চুক্তি চূড়ান্ত করতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত তেল পরিশোধন সংস্থাগুলো। ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদন মতে, রোজনেফট এর মতো রুশ সংস্থার কাছ থেকে আরও বেশি পরিমাণ তেল কিনতে আলোচনা করছেন কর্মকর্তারা।

ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ইন্ডিয়ান অয়েল, এইচপিসিএল ও বিপিসিএল ছাড়াও রুশ তেল কিনতে আলোচনা চালাচ্ছে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ ও রোজনেফট মালিকানাধীন নায়ারা এনার্জি। কী পরিমাণ তেল, কত দামে কেনা হবে তা নিয়ে আলোচনা চলছে।

তবে এখন পর্যন্ত ভারতের শীর্ষ তেল পরিশোধন কোম্পানি আইওসি রোজনেফটের সঙ্গে চুক্তি করতে সক্ষম হয়েছে। চুক্তির আওতায় প্রতি মাসে ৬০ লাখ ব্যারেল তেল আমদানি করতে পারবে সংস্থাটি। এছাড়া আরও ৩০ লাখ ব্যারেল তেল কেনার অপশনও রয়েছে তাদের। তবে সূত্র বলছে, ভারতের অন্য দুটি কোম্পানির চুক্তির আবেদন ফিরিয়ে দিয়েছে রুশ কোম্পানি।

একটি সূত্র বলেছে, ভারতের এইচপিসিএল ও বিপিসিএলের সঙ্গে কোনো চুক্তিতে সম্মত হয়নি রোজনেফট কর্তৃপক্ষ। কারণ হিসেবে কর্মকর্তারা বলেছেন, সরবরাহের মতো অতিরিক্ত তেল রাশিয়ার কাছে নেই। বিশ্লেষকরা বলছেন, রাশিয়া থেকে তেল না পেলে ভারতের কোম্পানিগুলোকে আবারও আন্তর্জাতিক বাজার থেকে বেশি দামে তেল কিনতে হবে।

খবর : রয়টার্স

Related Posts