বুধবার দেশে ফিরছেন নারী ক্রিকেটাররা

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব শেষে বুধবার (৩০ নভেম্বর) দেশে ফিরছেন বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা। তবে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে দেশে ফিরেও উৎসবের সুযোগ পাচ্ছে না নিগার সুলতানা জ্যোতিরা। জানা গেছে, দেশে ফিরে তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে।আফ্রিকার দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন। এদিকে, ভাইরাসটির কারণে জিম্বাবুয়েতে আটকে পড়া নারী ক্রিকেটারদের দেশে ফেরা নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছিল।

আফ্রিকার সঙ্গে একে একে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করছে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ। তবে আশার কথা হচ্ছে, অবশেষে বাংলাদেশে ফেরা হচ্ছে নারী ক্রিকেটারদের।  জানা গেছে, বিমান যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় জিম্বাবুয়ে থেকে চাটার্ড ফ্লাইটে নামিবিয়া এবং ওমানের রাজধানী মাসকাটে পৌঁছায় নারী ক্রিকেট দল। সেখান থেকে সরাসরি ফ্লাইটে বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাবে তারা। তবে পুরো দলকে পালন করতে হবে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন। আফ্রিকার দেশ জিম্বাবুয়েতে ওমিক্রনের প্রকোপ আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বাংলাদেশ নারী দলের জন্য। এর ফলে অবসান হয়েছে দীর্ঘ অপেক্ষার। আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ে ৫ নম্বরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। আর এ কারণেই ওয়ানডে বিশ্বকাপের মূল পর্বে প্রথমবারের মতো জায়গা করে নিল সালমা খাতুন, জাহানারা আলমরা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নারী বিভাগের ম্যানেজার তৈহিদ মাহমুদ জানান, বাংলাদেশ নারী দলকে প্রাথমিকভাবে পাঁচ দিনের কোয়ারাইন্টাইন পালন করতে হবে। এর মাঝে তাদের করোনা পরীক্ষা দিতে হবে। এর আগে জনস্বাস্থ্য বিশ্লেষক ডা. শেখ মইনুল খোকন বলেন, ওমিক্রন ঠেকাতে আমাদের নারী ক্রিকেটারদের মধ্যবর্তী একটি দেশে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়ত ঠিক হবে না। কিন্তু তারা দেশে আসলে তাদেরকে সাতদিন বা ১৪ দিন পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে। তারপর পরীক্ষা নিরীক্ষা করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরত পাঠাতে হবে। তবে সবচেয়ে ভালো হবে যদি ২৮ দিন যথাযথ পর্যবেক্ষণে রাখা যায়। করোনার গেল তিন ঢেউয়ে বিপর্যয় দেখেছে বাংলাদেশ। তাই এবার আর কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না বিসিবি। নারী উইংয়ের চেয়ারম্যান বলছেন, গোটা প্রক্রিয়া সমন্বয় করা হবে সরকারের সঙ্গে।

Related Posts