বিমানের পাইলটদের আন্দোলনের হুমকি

বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা না হলে আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলটরা। এ জন্য আগামী ৩০ জুলাই সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ পাইলট অ্যাসোসিয়েশন (বাপা)। বিষয়টি নিয়ে বুধবার (৩০ জুলাই) বৈঠকে বসার কথা রয়েছে বাপার। এই বৈঠক থেকেই আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এর আগে গত সোমবার (১২ জুলাই) বিমানের পরিচালক ফ্লাইট অপারেশনকে (ডিএফও) এ বিষয়ে একটি চিঠি দিয়েছে বাপা। চিঠিতে বলা হয়, আগামী ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যার করতে হবে। অন্যথায় চুক্তির বাইরে অতিরিক্ত কোনো ফ্লাইট পরিচালনা করবে না তারা। বাপার দাবি, করোনার মধ্যেও তাদের ফ্লাইট পরিচালনা করছেন তাদের পাইলটরা। এটি করতে গিয়ে ২৫ জন পাইলট এবং তাদের পরিবারের সদস্যরাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারপরও পাইলটদের ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনায় না নিয়ে উল্টো বেতন কর্তন করা হচ্ছে।
এদিকে ডিএফও অফিস সূত্রে জানা গেছে, যদি পাইলটরা চুক্তির বাইরে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধ করে দেন, তবে বিমানের দুবাই, আবুধাবী, দোহা, দাম্মাম ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
এর আগে গত মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এক আদেশে দেখা যায়, যাদের চাকরির বয়স শূন্য থেকে ৫ বছর তাদের বেতন আগামী জুলাই থেকে আর কর্তন করা হবে না। যেটি আগে ১৫ শতাংশ কর্তন করা হতো। অন্যদিকে, যেসব পাইলটের চাকরির বয়স ৫ থেকে ১০ বছর তাদের বেতন ২০ শতাংশের বদলে ৫ শতাংশ, যাদের চাকরির বয়স ১০ বছরের বেশি তাদের ৪০ শতাংশের বদলে ২৫ শতাংশ কর্তন করা হবে ।
এ বিষয়ে বাপার সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, পাইলটদের বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়নি। যদি ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে আমাদের দাবি মেনে নেওয়া না হয় তাহলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যাব।

Related Posts