বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছে মামা-ভাগ্নেসহ আরও ৩জন

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নাটোরের গুরুদাসপুরে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (২৫ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার ধানুড়া ভিটাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে, রোববার দুপুরে নেত্রকোনা শহরের জয়নগর এলাকায় টিনের চালে পেয়ারা পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আকাশ চক্রবর্তী (২১) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নাটোরের ঘটনায় মৃত মকবুল হোসেন (২২) নবাব-সিরাজ-উদ দৌলা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এবং আব্দুস সাত্তার (৬৫) একই গ্রামের কিতাব আলীর ছেলে। তাদের সম্পর্ক মামা-ভাগ্নে। গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, দুপুরে ভাগ্নে মকবুল হোসেন গোসল সেরে বাড়ির ভেতরে বৈদ্যুতিক তারের ওপর ভেজা কাপড় শুকাতে দেওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। এ সময় তার মামা আব্দুস সাত্তার মকবুলকে বাঁচাতে গেলে সেও বিদ্যুতাড়িত হয়ে পড়ে যায়। ঘটনাটি পরিবারের অন্যরা দেখতে পেয়ে মেইন সুইচ বন্ধ করে দেয়। পরে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুইজনকেই মৃত ঘোষণা করেন। অন্যদিকে, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট আকাশ চক্রবর্তী (২১) বাঁচাতে গিয়ে তার মামা প্রশান্ত চক্রবর্তী (৩৫) বিদ্যুৎতাড়িত হয়। এ সময় তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেওয়া হয়েছে। আকাশ নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার ফকিরের বাজার সংলগ্ন পাঁচ কাহনিয়া গ্রামের গোবিন্দ চক্রবর্তীর বড় ছেলে এবং আবু আব্বাস কলেজে এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি খন্দকার শাকের আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Related Posts