বাসে ডাকাতি-গণধর্ষনে ৪ জনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা ঈগল পরিবহণের বাসে ডাকাতি ও গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ১০ আসামির মধ্যে ৪ জন মঙ্গলবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বাকি ৬ জনের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

টাঙ্গাইল ডিবি পুলিশ উত্তরের ওসি মো. হেলাল উদ্দিন জানান, গ্রেফতারকৃতরা বাস ডাকাতি ও ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদকালে বাস ডাকাতি ও ধর্ষণের ঘটনায় বর্ণনা দিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন- বাসের নারী যাত্রীকে রাজা মিয়া দুইবার এবং রতন, আওয়াল, নুরনবী ও মান্নান একবার করে ধর্ষণ করেছেন।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে আসলাম তালুকদার (১৯), রাসেল তালুকদার (২৫), নাইম সরকার (১৯) ও আলাউদ্দিন (২৪) আদালতে জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। বিকালে তাদের টাঙ্গাইল চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নেয়া হয়।

টাঙ্গাইলের আদালত পরিদর্শক তানবীর আহম্মদ জানান, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা হাসানাত আসামি আসলাম তালুকদারের, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বাদল কুমার চন্দ আসামি রাসেল তালুকদারের, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আকরামুল ইসলাম আসামি নাইম সরকারের এবং সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবর রহমান আসামি মো. আলাউদ্দিনের জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

এর আগে মাহমুদুল হাসান ওরফে মুন্না ওরফে রতন (২২), আব্দুল মান্নান (২০), বাবু হোসেন ওরফে জুলহাস (২১), মো. সোহাগ (১৯), জীবন প্রামানিক (২০) ও খন্দকার হাসমত আলী ওরফে দীপুকে (২৩) গোয়েন্দা পুলিশ আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করেন। আদালতের বিচারক ফারজানা হাসানাত প্রত্যেককে তিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Related Posts