এবার যুক্তরাজ্যও তুলে নিলো বাংলাদেশ ভ্রমণে সতর্কতা

করোনার সংক্রমণ কমে আসায় বিশ্বের ৩২টি দেশে ভ্রমণের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, ফিজি এবং গাম্বিয়া রয়েছে।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, যারা দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন তারা সহজেই ভ্রমণ করতে পারবেন। নতুন এই সিদ্ধান্তের কারণে ব্রিটেনের মানুষ আরও সহজেই অধিক সংখ্যক গন্তব্যে ভ্রমণ করতে পারবে। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ত্রুজ এ নিয়ে বলেন, এই পরিবর্তনগুলো ভ্রমণকে আরও সহজ করে তুলবে। ব্যবসায় হবে অগ্রগতি। তাছাড়া পরিবার, প্রিয়জন ও বন্ধুদের সঙ্গে সহজেই দেখা করা সম্ভব হবে। আমরা মানুষকে নিরাপদ রাখার পাশাপাশি সঠিক ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টা করছি। কারণ এটিই আমাদের অগ্রাধিকার। তবে যেসব দেশ এখনও যুক্তরাজ্যের লাল তালিকায় আছে, সেখানে ব্রিটিশদের অত্যাবশ্যক প্রয়োজন ছাড়া ভ্রমণে না যেতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ওইসব দেশে ব্রিটিশদের জন্য ঝুঁকি খুব বেশি। নতুন ঘোষণায় যেসব দেশের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে সেগুলো হলো- বাংলাদেশ, টোকেলাউ ও নিউ, জিবুতি, গিনি, ফিজি, গাম্বিয়া, গায়ানা, কাজাখস্তান, কিরিবতী, কসোভো, লাইবেরিয়া, মাদাগাস্কার, মালয়েশিয়া, আলজেরিয়া, সাউ তোমি ও প্রিন্সিপে, সেনেগাল, সলোমন আইল্যান্ডস, টোগো, টোঙ্গা, আর্মেনিয়া, বেলারুশ, বেনিন, কমোরোস, মার্শাল আইল্যান্ডস, মাইক্রোনেশিয়া, নাউরু, টুভালু, ভানুয়াতু, কঙ্গো, আমেরিকা সামোয়া, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ও ঘানা। এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর এক টুইট বার্তায় বাংলাদেশসহ আটটি দেশকে করোনাজনিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার লাল তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার কথা জানান ব্রিটিশ পরিবহনমন্ত্রী গ্র্যান্ট শ্যাপস। এর ফলে বাংলাদেশিদের জন্য আবারও ইংল্যান্ডে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হয়। এবার ব্রিটিশদেরও বাংলাদেশে আসতে আর কোনো সতর্কতা রইল না।