বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

১৯৭১ সালের ১৪ই ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তার সহযোগী রাজাকার আল-বদর, আল-শামস বাংলাকে মেধা শূন্য করতে বাংলার অসংখ্য শ্রেষ্ঠ সন্তান  শিক্ষাবিদ, গবেষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, সাংবাদিক, কবি ও সাহিত্যিকদের নির্মমভাবে হত্যা করে। ঠিক দুদিন পর ১৬ ডিসেম্বর জেনারেল নিয়াজির নেতৃত্বাধীন বর্বর পাকিস্তানিরা মুক্তিবাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে এবং স্বাধীন দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। এর পর থেকে ১৪ই ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে ।

দিবসটি উপলক্ষে আজ বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় সকাল ৮ টা ৩০ মিনিটে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওসমান গনি তালুকদার-এর নেতৃত্বে প্রভাত ফেরি বের হয়। প্রভাত ফেরিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ভবন থেকে শুরু করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক হয়ে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকে পুষ্পাঞ্জলী অর্পণের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে এক মিনিট নিরাবতা পালনের মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। এরপর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পাঞ্জলী অর্পণ করা হয়। পুষ্পাঞ্জলী অর্পণ করেন- বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওসমান গনি তালুকদার, সিএসই বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. মো. শহীদ-উজ-জামান, আইন বিভাগের কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর আবু নাসের মো. ওয়াহিদ, ও জার্নালিজম কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের কো-অর্ডিনেটর শাতিল সিরাজ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন-বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার পারমিতা জামান ও প্লানিং ও ডেভেলপমেন্ট এর সহকারী পরিচালক মো. সিরাজুর রহমানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।