পাবনা মানসিক হাসপাতালে নারীর আত্মহত্যা

পাবনা মানসিক হাসপাতালে শাহনাজ বেগম (৩৩) নামের এক নারী আত্মহত্যা করেছেন বলে জানা গেছে। সোমবার (২২ নভেম্বর) তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে রোববার (২১ নভেম্বর) দুপুরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তার স্বজনরা। শাহনাজ বেগম জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা পশ্চিমপাড়া গ্রামের লাল চান মিয়ার স্ত্রী। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ভর্তির পর তাকে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের জেনারেল বেডে রাখা হয়। ভর্তির রাতেই তিনি তার শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। রোববার রাতে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে কর্মরত নার্স তানিয়া খাতুন বলেন, ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে ১৩টি বেড রয়েছে। শাহনাজ পাঁচ নম্বর বেডে ছিলেন। রাতে সব বেডে মশারি টাঙানো থাকায় তাকে দেখা যায়নি। রাউন্ডে বের হওয়ার সময় মনে হচ্ছিল, তিনি জানালা ধরে দাঁড়িয়ে আছেন। কাছে গিয়ে তাকে বিছানায় শোয়ানোর চেষ্টার সময় দেখা যায় তার গলায় কাপড় দিয়ে ফাঁস লাগানো। এ সময় হাসপাতালের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানাই। হাসপাতালের পরিচালক ডা. আবুল বাশার মো. আসাদুজ্জামান জানান, সেবিকাদের কাছ থেকে তিনি ঘটনাটি জানতে পারেন। সঙ্গে সঙ্গে পাবনা সদর থানা পুলিশকে জানানো হয়। এছাড়া ওই নারীর স্বামীকে খবর দেওয়া হয়। তারা হাসপাতালে এসে শাহনাজের মরদেহ এলাকায় নিয়ে যেতে চান। পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হাসপাতাল থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। মরদেহের সুরতহাল করে প্রকৃত ঘটনা নিশ্চিতের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

Related Posts