পরীমনিকে একনজর দেখতে থানায় জমেছে ভিড় জনতার

মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন ঢালিউড অভিনেত্রী পরীমনি। পাঁচ বছর ধরে মাদকাসক্ত ঢালিউডের এই নায়িকা। এছাড়াও, অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে র‌্যাব বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটের দিকে পরীমনিকে রাজধানীর বনানী থানায় হাজির করে র‌্যাব। এরপর সন্ধ্যার দিকে বনানী থানায় অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়। এসময় নায়িকাকে এক নজর দেখতে থানায় উৎসুক জনতা ভিড় জমায়।

 বনানী থানার ওসি নূরে আজম মিয়া সংবাদমাধ্যমকে জানান, অভিনেত্রী পরীমনি ও চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজকে থানায় নিয়ে আসেন র‍্যাব সদস্যরা। তাদের থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে র‍্যাব বাদী হয়ে মামলা করেছে। মামলা শেষে তাদের  আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া, পরীমনির সহযোগী আশরাফুল ইসলাম বিপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। মাদক ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে রাজ ও তার সহযোগী সবুজ মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় অভিযোগ করা হয়, গ্রেপ্তারকৃতরা নিজেদের দখলে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ, এলএসডি, আইস ও সিসা রেখেছিল। যা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ। এ কারণেই তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বুধবার (৪ আগস্ট) বিকেলে পরীমনির বনানীর বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ, ভয়ংকর মাদক আইস, এলএসডি ও মাদক সেবনের সরঞ্জামাদি উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর আলোচিত এ নায়িকাকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয় র‌্যাবের সদর দপ্তরে। সেখানে র‌্যাবের মুখোমুখি হন পরীমনি। রাতভর জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর বহু তথ্য।
 
এরপর র‌্যাব সদর দপ্তরে বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন জানান, পরীমনির বাসায় মিনিবার রয়েছে। মদের লাইসেন্স থাকলেও মেয়াদ পেরিয়েছে অনেক আগেই। পরীমনি ও নজরুল রাজসহ এই চক্র ডিজে পার্টি আয়োজনের মাধ্যমে বিপুল অর্থ উপার্জন করত। এসব অর্থ তারা বিভিন্ন ব্যবসার কাজে লাগাত। তিনি আরও বলেন, নায়িকা পরীমনির বাসায় মাদক সরবরাহ করতেন চলচ্চিত্র প্রযোজক ও অভিনেতা নজরুল ইসলাম রাজ। ডিজে পার্টিতে যারা যেতেন, তাদের বিষয়ে আমরা তথ্য পেয়েছি। যাচাই-বাছাই করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।