পঞ্চম ম্যাচে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ১২৩ রান

প্রথম তিন ম্যাচ জিতেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টির সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচ আজ। শেষ ম্যাচে টস জিতে ব্যাট নিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আগে ব্যাট করে ১২২ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষ ওভারে জোড়া উইকেট হারায় বাংলাদেশ। জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার লক্ষ্য ১২৩ রান।

সিরিজে টানা চার ম্যাচে টানা ব্যর্থ ছিলেন সৌম্য সরকার। নাঈম রানের দেখা পেলেও সৌম্য ছিল রানখরায়। চার ম্যাচে তার ব্যাট থেকে আসে সর্বসাকুল্যে ১২ রান। সর্বোচ্চ করেছেন ৮ রান।

পঞ্চম ম্যাচে ওপেনিংয়ে আসেন মেহেদী, নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে দুজনের ব্যাটে সিরিজে ওপেনিং জুটিতে সর্বোচ্চ রান তোলে। এর আগে নাঈম-সৌম্যর জুটি থেকে আসে সর্বোচ্চ ২৪ রান। শেষ ম্যাচে ওপেনিং জুটি থেকে এসেছে ৪২ রান।

শুরু থেকেই অজি স্পিনারদের উপর চড়াও হয়ে খেলছেন নাঈম-মেহেদী। আক্রমণাত্মক শুরুর পর ইনিংসের পঞ্চম ওভারে উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওভারের চতুর্থ বলে অ্যাস্টন টার্নারকে মারতে যেয়ে আউট হন মেহেদী হাসান। ১২ বলে ১৩ রান করেন তিনি।

সাকিব আল হাসানের কাছে প্রত্যাশা সবসময় বেশিই থাকে। শেষ টি-টোয়েন্টিতেও ছিল। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের শুরুটাও ভালো হলো। কিন্তু টেনে নিতে পারলেন না ইনিংস। সাকিব ফিরেছেন ২০ বলে ১১ রান করে। অ্যাডাম জাম্পার বলে এলবির শিকার হয়ে আউট হয়ে গেছেন তিনি।

ক্রিজে আসার পর থেকেই ভালো টাইমিং হচ্ছিল মাহমুদউল্লাহর। কিন্তু আলগা শটে ফিরতে হয়েছে তাকেও। অ্যাশটন অ্যাগারকে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ১৪ বলে ১৯ রান করেন তিনি।

টানা চার ম্যাচে ব্যর্থ সৌম্য শেষ ম্যাচে সম্ভাবনা জাগিয়েছিল। তবে টিকতে পারলেন না বেশীক্ষণ। লং অফে ক্যাচ দিয়ে সৌম্য আউট হয়েছেন ১৮ বলে ১৬ রান করে। সিরিজে এটিই সৌম্যর সর্বোচ্চ স্কোর, এর আগের চার ইনিংসে করেছিলেন ২, ০, ২ ও ৮ রান।

বাংলাদেশ একাদশে দুই পরিবর্তন। আগের ম্যাচের একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন শরীফুল ইসলাম ও শামীম পাটোয়ারি। একাদশে ফিরেছেন মোসাদ্দেক হোসেন ও সাইফউদ্দিন।

এদিকে অস্ট্রেলিয়া দলেও দুই পরিবর্তন ঘটেছে। জশ হ্যাজলউড ও অ্যান্ড্রু টাইয়ের পরিবর্তে ফিরেছেন অ্যাডাম জাম্পা ও নাথান এলিস।

Related Posts