নিহত ৩ এডেন উপসাগরে কার্গো জাহাজে হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায়

নিহত ৩ এডেন উপসাগরে কার্গো জাহাজে হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায়

য়েমেনের দক্ষিণাঞ্চলে একটি পণ্যবাহী জাহাজে হুথি বিদ্রোহীদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তিন ক্রু নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম-বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সশস্ত্র দলটি এই অঞ্চলে বাণিজ্যিক জাহাজগুলোতে হামলা শুরুর পর, প্রথম নিহতের ঘটনা এটি।

মার্কিন সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বুধবার রাত সাড়ে ১২ টায় বার্বাডোজের পতাকাবাহী ট্রু কনফিডেন্স নামের জাহাজটিতে হামলা চালানো হয়। ইয়েমেনি শহর এডেন থেকে ৫০ নটিক্যাল মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে এডেন উপসাগরে জাহাজটির ওপর হামলাটি চালানো হয়।

মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড জানিয়েছে, জাহাজটির তিন ক্রু নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে চারজন। এদের তিনজনের অবস্থা গুরুতর। জাহাজটিতে আগুন ধরে গেলে অন্যরা পালিয়ে যায়। তবে আগুন নিয়েই জাহাজটি অনেকটা এগিয়ে যায়।

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাহাজটিতে মোট ২০ জন ক্রু ছিল। একজন ভারতীয়। চারজন ভিয়েতনামের আর ১৫ জন ফিলিপাইনের নাগরিক। এছাড়া জাহাজের তিন সশস্ত্র প্রহরীর মধ্যে দুইজন শ্রীলঙ্কার আর একজন নেপালের।

হামলার পর এক বিবৃতিতে ইরান সমর্থিত সশস্ত্র দলটি বলেছে, ট্রু কনফিডেন্স আমেরিকান জাহাজ। এর নাবিকরা হুথি নৌ বাহিনীর দেয়া সংকেত উপেক্ষা করেছে।

এদিকে, জাহাজের মালিক ও ব্যবস্থাপকদের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বর্তমানে জাহাজটির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কোনও সংস্থার কোনও সংশ্লিষ্টতা নেই।

হামলার পর হুথিদের পরিচালিত আল-মাসিরাহ টিভি বুধবার সন্ধ্যায় এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, হুথি নিয়ন্ত্রিত লোহিত সাগরের বন্দর নগরী হুদায়দাহ এর একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর লক্ষ্য করে যুক্তরাষ্ট্র দুটি বিমান হামলা চালিয়েছে। হামলাটি তার প্রতিক্রিয়া বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেছে, এ হামলার জন্য হুথিদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার ব্যবস্থা করবে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে হুথিদের দাবি, গাজায় চলমান ইসরায়েল ও হামাস যুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন জানাতে হামলাটি চালানো হয়েছে।