নারায়ণগঞ্জে বাসের ধাক্কায় দাদি-নাতনি নিহত

নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুরে বাসের ধাক্কায় দাদি-নাতনি নিহত হয়েছেন। তারা হলেন শামসুন্নাহার (৫৯) ও আরফি আক্তার (৮)।শুক্রবার (১৭ জুন) বেলা পৌনে ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক দুপুর ১টায় শামসুন্নাহারকে মৃত ঘোষণা করেন। আর চিকিৎসাধীন দুপুর ২টার দিকে মারা যায় আরফি।

প্রত্যক্ষদর্শী জহুরা খাতুন জানান, তারা নারায়ণগঞ্জ বন্দর দড়ি সোনাকান্দা এলাকায় থাকেন। সকালে তার ভাই নুর মোহাম্মাদ, ভাবি শামসুন্নাহার ও তাদের নাতনি আরফিকে নিয়ে নরসিংদীতে যাচ্ছিলেন। সেখানে শামসুন্নাহারের মেয়ের ঘরের আরেক নাতনি অসুস্থ থাকায় তাকে দেখতে যাচ্ছিলেন।

জরুরা খাতুন কবিরাজি চিকিৎসা করেন। এ জন্য তাকেও সঙ্গে নিয়েছিলেন। তারা বাসে করে বন্দর থেকে কাঁচপুর আসে। এরপর চারজন রাস্তা পার হচ্ছিলেন। প্রথমে নুর মোহাম্মদ একাই পার হয়ে যায়। এরপর নাতনির হাত ধরে পার হচ্ছিলেন শামসুন্নাহার। আর তাদের পেছনে ছিলেন জহুরা। তখন একটি দ্রুতগতির বাস তাদের দুজনকে চাপা দেয়।

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাফিজুর রহমান জানান, রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি বাস চাপায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে চিকিৎসাধীন ঢাকা মেডিকেল দাদি-নাতনি মারা গেছে। ঘটনার পরপরই ঘাতক বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে এর চালক পালিয়ে গেছে। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে। ৬ ছেলে ও ১ মেয়ের জননী ছিলেন শামসুন্নাহার। তার ছেলে নাসির হোসেনের দুই সন্তানের মধ্যে ছোট ছিল আরিফা। স্থানীয় একটি স্কুলে লেখাপড়া করত সে।

Related Posts