নাটোরে বিএনপির অফিস থেকে ৫টি ককটেল, পেট্রোল বোমা উদ্ধার

নাটোরের লালপুর উপজেলা ও গোপালপুর পৌর বিএনপির অফিস থেকে ৫টি ককটেল সদৃশ্য বস্তু ও দুইটি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করেছে লালপুর থানা পুলিশ। এঘটনায় পুলিশ বিস্ফোরক আইনে ও যুবলীগ কর্মী নেওয়াজ শরীফ বিকি বাদি হয়ে ৮জন এজাহার নামীয়সহ অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কেউ আটক হয় নি। শনিবার (১৯ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে গোপালপুর পৌরসভার বাজারে গোপালপুর পৌর ও উপজেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে এইগুলো উদ্ধার করা হয়।

লালপুর থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান জানায়, ছাত্রলীগ কর্মীদের ভ্যষ্যমতে গত রাতে ছাত্রলীগ কর্মীরা বিএনপির অফিসের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাদের উদ্দেশ্য করে বিএনপির কর্মীরা ককটেল ছুড়ে মারে। এ সময় যুবলীগ কর্মী নেওয়াজ শরীফ বিকি আহত হন। বিস্ফোরনের শব্দ শুনে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কর্মীরা অফিসের সামনে রুখে দাঁড়ায় ও বিক্ষোভ মিছিল করলে বিএনপি কর্মীরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে ও তাদের উপস্থিতিতে ৫টি ককটেল সদৃশ্য বস্তু ও ২টি পেট্রোল বোমা এবং বিস্ফোরিত ককটেলের খোসা উদ্ধার করা হয়।’ এঘটনায় পুলিশ বিস্ফোরক আইনে ও যুবলীগ কর্মী নেওয়াজ শরীফ বিকি বাদি হয়ে ৮জন এজাহার নামীয়সহ অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা করেছেন। তবে ককটেল সদৃশ্য বস্তু ও পেট্রোল বোমা গুলো কে বা করা রেখেছিলো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলেও জানান ওসি।

গোপালপুর পৌর যুবলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন হোসেন জানান, নাশকতা সৃষ্টির জন্যেই বিএনপির সন্ত্রাসীরা তাদের কার্যালয়ে এই পেট্রোল বোমা এবং ককটেল জমা করে রেখেছিল পুলিশ তা উদ্ধার করে।’ লালপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফু বলেন,‘আগামী ৩ ডিসেম্বর বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় মহাসমাবেশ কে কেন্দ্র করে এলাকায় অস্থির পরিবেশ তৈরীর জন্যেই বিএনপির এমনটা করেছে। তবে গোপালপুর পৌর বিএনপির আহবায়ক ও সাবেক পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম মোলাম বলেন, ‘বিএনিপ ককটেল ও পেট্রোল বোমার রাজনীতি করে না। কোন প্রকার উস্কানি ছাড়াই আওয়ামলীগের কর্মীরা দুই দফা বিএনপির অফিসে হামলা চালিয়েছে। শনিবার আওয়ামীলীগে কর্মী সমর্থকরাই বিএনপি কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে এবং ককটেল ও পেট্রোল বোমা গুলি কার্যালয়ের সামনে রেখে পুলিশে খবর দেয়। এর আগে প্রথম দফায় গত ১৫ নভেম্বরেও আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীরা বিএনপি কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে।

Related Posts