নতুন গান! মৃত্যুর পাঁচ বছর পর

নতুন গান! মৃত্যুর পাঁচ বছর পর

বাংলা গানের সুমিষ্ট কণ্ঠশিল্পীদের মধ্যে অন্যতম সুবীর নন্দী। অনিন্দ্য গায়কীতে তিনি মুগ্ধ করেছেন কয়েক দশক। এই সুরের মায়াজাল ছিঁড়ে বছর পাঁচেক আগে তিনি চলে গেছেন না ফেরার দেশে। অথচ তার কণ্ঠেই কিনা আসছে নতুন গান!

বিস্ময়ের কিছু নেই অবশ্য। আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের (এআই) যুগে এটা অসম্ভব কিছু না। তবে সুবীর নন্দীর গান এআই-তে নয়, বরং তিনিই গেয়েছেন। কারণ এ গানের রেকর্ডিং হয়েছে তার জীবদ্দশায়। গানটির শিরোনাম ‘ঘুম’। এটি রচনা করেছেন হালের আলোচিত গীতিকবি সোমেশ্বর অলি। সুর-সংগীতে তানভীর তারেক।

সংগীত পরিচালক জানালেন, তিনি দীর্ঘ দিন ধরেই সুবীর নন্দীর গান নিয়ে কাজ করছিলেন। কিন্তু সেগুলো প্রকাশের আগেই শিল্পী প্রয়াত হয়েছেন। তবু সময় নিয়ে গানগুলো শ্রোতাদের কান অব্দি হাজির করতে চান তিনি। তানভীর তারেক বললেন, “সুবীর দা আমার সংগীত জীবনের অনেক বড় এক অনুপ্রেরণার নাম। সংগীতের যে কোনও বিষয়ে তিনি আমাকে বরাবরই সাহস জুগিয়েছেন। একদিন এক আড্ডায় আমাকে তিনি বলেন- ‘তানভীর, তোমরা এ সময়ের সুরকার। আমার জন্য কিছু গান বাঁধো। গেয়ে যাই।’ আমার কাছে দাদার এই কথাটি অনেক বড় পুরস্কারের মতো ছিল। এরপরে আমি আমার স্টুডিওতে সুবীর দা’র জন্য নিয়মিত গান তৈরির কাজে লেগে যাই।”

কিছুটা পেছনের স্মৃতি হাতড়ে তানভীর তারেক বলেন, “আমরা দীর্ঘ সময় নিয়ে গানগুলোর কাজ করেছি। দিনের পর দিন সুবীর দা আর আমি আমার স্টুডিও কোলাহলে মাঝরাত অব্দি সময় কাটিয়েছি। অ্যালবামে ঢাকা-কলকাতার মিউজিশিয়ানরা বাজিয়েছেন। এভাবে আমরা ১০ টি গান কমপ্লিট করি। এর মধ্যে একটি গান আমি আমার চ্যানেলে রিলিজ দিয়েছি। এটি দ্বিতীয় গান হতে যাচ্ছে।’

এদিকে ‘ঘুম’ নিয়ে কিঞ্চিৎ বিস্মিত গীতিকবি অলি। তার ভাষ্য, ‘তানভীর ভাইকে অনেক আগে দুটি গান দিয়েছিলাম। তার ভেতরে এই গানটি তিনি কবে কখন সুর করে সুবীর দাকে দিয়ে গাইয়ে রেখেছেন, সত্যিই আমি জানি না। আমি শুনে অবাক। আমার জন্য এটা সারপ্রাইজ ছিল! কিছুটা আবেগ্রাক্রান্ত হয়ে গেলাম। মনে হচ্ছিল এআই দিয়ে দাদাকে আবার ফিরিয়ে আনলাম! তানভীর ভাইয়ের সুরে দাদার নিজস্ব কন্ঠের এই আনরিলিজ ট্র্যাক শ্রোতাদের জন্য বিশেষ উপহার হয়ে থাকবে বলে আমার বিশ্বাস।’

বাঁ থেকে- সুবীর নন্দী, তানভীর তারেক ও সোমেশ্বর অলি‘সাউন্ডস অব তানভীর’ নামের ইউটিউব চ্যানেল ও স্বাধীন মিউজিক অ্যাপসহ বিভিন্ন স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে শিগগিরই গানটি প্রকাশ হবে। এরপর বাকি আটটি গানও ধারাবাহিকভাবে আসবে বলে জানিয়েছেন তানভীর তারেক।

উল্লেখ্য, একুশে পদক ও পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী সুবীর নন্দীর জন্ম ১৯৫৩ সালের ১৯ নভেম্বর। তিনি বাংলা চলচ্চিত্র ও অডিও গানে অসামান্য অধ্যায়ের অধিপতি। তার গাওয়া কালজয়ী গানের মধ্যে রয়েছে ‘আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়’, ‘পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি’, ‘তুমি এমনই জাল পেতেছ’, ‘বন্ধু হতে চেয়ে তোমার’, ‘কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো’, ‘একটা ছিল সোনার কন্যা’, ‘ও আমার উড়াল পঙ্খীরে’ ইত্যাদি।