তানজিদ তামিম এক সেঞ্চুরিতে শীর্ষ রান সংগ্রাহক

তানজিদ তামিম এক সেঞ্চুরিতে শীর্ষ রান সংগ্রাহক

বিপিএলের শুরুটা ভালো হয়নি তানজিদ হাসান তামিমের। খোলস ছেড়ে বের হতে সময় নিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তার সেঞ্চুরিতে ১৯২ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। এক সেঞ্চুরি করেই যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের এই ব্যাটার চলমান বিপিএলে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকার শীর্ষেও উঠে গেছেন।

চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই ওপেনার মোহাম্মদ ওয়াসিমকে হারায় চট্টগ্রাম। এরপর সৈকত আলীকে নিয়ে শুরু হয় জুনিয়র তামিমের লড়াই। ৫৬ রানের জুটির পর সৈকত ব্যক্তিগত ১৮ রানে বিদায় নেন। ৬০ রানে দুই উইকেট হারানো দলকে পরে দারুণ স্কোর এনে দেয় টম ব্রুস ও তানজিদ তামিমের জুটি। ১৮তম ওভারের প্রথম বলে তামিম সাজঘরে ফিরলে ভাঙে ১১০ রানের জুটি! আউট হওয়ার আগে অবশ্য বিপিএলের ৩২তম সেঞ্চুরি তুলে নেন চট্টগ্রামের এই ওপেনার।

এদিন শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাটিং করেছেন তানজিদ। ৩২ বলে ৪ চার ও ৪ ছক্কায় হাফ সেঞ্চুরি ছোঁয়া তামিম দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি ছুঁয়েছেন ২৬ বলে। ১৬তম ওভারে জেসন হোল্ডারের বলে সিঙ্গেল নিয়ে বিপিএলের ইতিহাসে ৩২তম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করেই শূন্যে ব্যাট ছুড়ে বুনো উদযাপন করেছেন।

শুধু তাই নয়, কুড়ি ওভারের স্বীকৃতি ক্রিকেটে প্রথম সেঞ্চুরি করার পথে তাওহীদ হৃদয়কে ছাড়িয়ে শীর্ষ রান সংগ্রাহক এখন তিনিই। ১১ ম্যাচে ১ সেঞ্চুরি ও ২ হাফ সেঞ্চুরিতে তার রান ৩৮২। দু্ই নম্বরে থাকা তাওহীদ হৃদয়ের রান ১০ ম্যাচে ৩৫৮।

বিপিএলে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর ক্রিস গেইলের। ২০১৭ সালে রংপুর রাইডার্সের হয়ে ঢাকা ডায়নাইমাইটসের বিপক্ষে ১৪৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন। আর বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ রান তামিম ইকবালের। পুরো তালিকার দুই নম্বরে আছেন তিনি। ২০১৯ সালে তামিম খেলেছিলেন ১৪১ রানের অপরাজিত ইনিংস। মঙ্গলবার ১১৬ রানের ইনিংস খেলে জুনিয়র তামিম অনেককেই টপকে গেছেন। ৩২তম সেঞ্চুরি করে ব্যক্তিগত স্কোর বিবেচনায় তিনি আছেন পাঁচ নম্বরে। তার আগে বাংলাদেশ থেকে আছেন কেবল তামিম ইকবাল (১৪১*), সাব্বির রহমান (১২২)।

এদিন সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর আরও আগ্রাসী ব্যাটিং করেছেন তানজিদ। যদিও ইনিংসের ১১ বল আগেই সাজঘরে ফিরতে হয়েছে। ৬৫ বলে ৮ চার ও ৮ ছক্কায় নিজের ইনিংসটিকে সাজান এই ব্যাটার। এছাড়া টম ব্রুসের ২৩ বলে ৩৬ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে চট্টগ্রাম ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯২ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায়।