র‍্যাবের সঙ্গে গোলাগুলিতে টেকনাফে রোহিঙ্গা নিহত

কক্সবাজারে র‍্যাবের সঙ্গে গোলাগুলিতে টেকনাফে রোহিঙ্গা ডাকাতদল ‘হাসেম বাহিনীর’ প্রধান নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে অস্ত্র ও গুলি।

র‍্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ জানান, শুক্রবার (১৬ জুলাই) ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া পাহাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত মোহাম্মদ হাসিমুল্লাহ (৩০) টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মৃত আবুল বশরের ছেলে। র‍্যাব জানিয়েছে, হাসিমুল্লাহ একজন চিহ্নিত ডাকাত। তিনি নিজের নামে একটি ডাকাতদল গড়ে তোলেন। এছাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় ডাকাতি, অপহরণ ও হত্যাসহ নানা অপরাধ সাথে জড়িত। উইং কমান্ডার আজিম বলেন, শুক্রবার ভোর রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া পাহাড়ি এলাকায় কতিপয় অস্ত্রধারী দুর্বৃত্ত অবস্থান করছে, এমন খবরে র‍্যাবের একটি দল অভিযান চালায়। এতে ঘটনাস্থল পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা অতর্কিত র‍্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে র‍্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থলে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। অন্য দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি করে পাওয়া যায় ১টি বিদেশি পিস্তল, ২টি দেশীয় তৈরি লম্বা বন্দুক, ৮টি গুলি ও ১টি পিস্তলের ম্যাগজিন। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। র‍্যাবের কর্মকর্তা বলেন, হাসিমুল্লাহ’র নেতৃত্বে একটি ডাকাতদল জাদিমুরাসহ বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ডাকাতি, অপহরণ, মাদকপাচার ও হত্যাসহ নানা অপরাধ সংঘঠিত করে আসছিল। এসব অভিযোগে টেকনাফ থানায় তার বিরুদ্ধে ৫টির অধিক মামলা রয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ।

Related Posts