গাছের সঙ্গে বেঁধে শিশুকে নির্যাতন, গ্রেপ্তার ২

গাছের সঙ্গে বেঁধে শিশুকে নির্যাতন, গ্রেপ্তার ২

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে তৃতীয় শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে রশি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে ক্ষেতলাল উপজেলার ধনতলা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।  গ্রেপ্তাররা হলেন- বেলী বেগম ও রহিমা খাতুন। বেলী ধনতলা বাজার এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিকের স্ত্রী এবং রহিমা একই এলাকার সরাফত হোসেনের স্ত্রী।  ক্ষেতলাল থানার ওসি নীরেন্দ্রনাথ মণ্ডল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি নীরেন্দ্রনাথ মণ্ডল জানান, ধনতলা বাজারে বেলী চা বিক্রি করছিলেন। ওই সময় শিশুটি তার দোকানে দাঁড়িয়েছিল। ক্যাশ বাক্সে দুইশ’ টাকা না থাকার অভিযোগ এনে শিশুটিকে বাজারের পাশে রশি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেন ওই দুই নারী। এই দৃশ্য স্থানীয়রা দেখে এগিয়ে আসলে শিশুটি টাকা চুরি করেছে বলে অভিযোগ করেন বেলী ও রহিমা।  ওসি আরও জানান, নির্যাতিত ওই শিশু টাকা চুরির কথা অস্বীকার করে কাঁদতে থাকে। স্থানীয় একজন ঘটনাটি ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিলে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। মামলা হলে অভিযুক্ত বেলী ও রহিমাকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়।

অনলাইন ডেস্ক