জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে মানবাধিকার ও গণতন্ত্রের প্রতি বাংলাদেশের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত

জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে মানবাধিকার ও গণতন্ত্রের প্রতি বাংলাদেশের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাম্য, অন্তর্ভুক্তিতা, গণতন্ত্র এবং মানবাধিকারের নীতি সমুন্নত রাখার আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে সকল নাগরিকের জন্য মানবাধিকার এবং মৌলিক অধিকারের উন্নয়ন ও সুরক্ষায় বাংলাদেশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার জেনেভাতে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের ৫৫তম অধিবেশনের উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকে এক ভিডিও বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

জেনেভাতে বাংলাদেশ মিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপিতে জানানো হয় সম্প্রতি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন হয়েছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে গণতান্ত্রিক নীতি সমুন্নত রাখতে সরকারের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, সরকার জনগণের নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার নিশ্চিত করার পাশাপাশি ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ও সামাজিক সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

ড. মাহমুদ বাংলাদেশে আশ্রয়গ্রহণকারী রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের রাখাইনে নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে সব পক্ষের সমন্বিত প্রচেষ্টার ওপর জোর দেন। বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের দীর্ঘস্থায়ী অবস্থান আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তার জন্য হুমকির কারণ হতে পারে বলে সতর্ক করে তিনি রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ (ফাইল ছবি)

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিস্তিনে নির্বিচারে বেসামরিক নাগরিকদের হত্যার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন এবং অবিলম্বে ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধের আহ্বান জানান। পবিত্র কুরআনের প্রকাশ্য অবমাননা এবং ইসলামফোবিয়ার নিন্দা জানিয়ে তিনি বিভিন্ন ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের ওপর জোর দেন।

মাহমুদ মানবাধিকার কাউন্সিলকে সার্বজনীনতা, নিরপেক্ষতা ও বস্তুনিষ্ঠতা নীতির আলোকে মানবাধিকার সমুন্নত রাখার বিষয়ে সংস্থাটিকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রী।

২৬ ফেব্রুয়ারি জেনেভায় শুরু হওয়া জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের ৫৫-তম অধিবেশন আগামী ০৫ এপ্রিল পর্যন্ত চলমান থাকবে।