গোল্ডেন বুট পাচ্ছেন লেভানডোভস্কি

গত এক যুগের বেশি সময় ধরে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার ব্যক্তিগত সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লিওনাল মেসি। তবে গত মৌসুমে এ পুরস্কারটা জেতেন বায়ার্নের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডোভস্কি। চলতি মৌসুমেই সেই ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন ৩৩ বছর বয়সী এই পোলিশ তারকা।

২০২১-২২ মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার যে রবার্ট লেভানডোভস্কি নিজের করে নিতে যাচ্ছেন তা এক প্রকার নিশ্চিত করেই বলা যায়। ৩৩ বছর বয়সেও দুরন্ত গতিতে ছুটে চলেছেন লেভানডোভস্কি। এখন পর্যন্ত চলতি মৌসুমে করেছেন ৩৪ গোল। অবশ্য গত মৌসুমে ৪১ গোল করে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন তিনি।

দ্বিতীয় স্থানে আছেন ইতালিয়ান সিরি-আ’র ল্যাৎজিও’র স্ট্রাইকার চিরো ইম্মোবিলে। ল্যাৎজিও’র এই ফুটবলারের পা থেকে এসেছে মোট ২৭ গোল। সিরি-আ’তে আরও দুই ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবেন তিনি। ওই দুই ম্যাচে ইম্মোবিল অবিশ্বাস্য কোনো পারফর্ম না করলে রবার্ট লেভানডস্কির হাতেই উঠবে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট।

এদিকে তৃতীয় স্থানে আছেন এই মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রিয়ালের ফরাসি তারকা করিম বেনজেমা। ২৬ গোল নিয়ে ইম্মোবিলের ঘাড়েই নিশ্বাস ফেলছেন বেনজেমা। আর ২৪ গোল নিয়ে চার এবং পাঁচ নম্বরে অবস্থান করছেন যথাক্রমে বুন্দেসলিগার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা প্যাট্রিক শিক এবং লিগ ওয়ানের সর্বোচ্চ গোলদাতা কিলিয়ান এমবাপ্পে।

মৌসুমের শেষ দিকে এসে লেভানডোভস্কিকে হারান কারো পক্ষেই সম্ভব না। তাই নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, টানা দুই মৌসুমে গোল্ডেন বুটের পুরস্কারটা উঠতে যাচ্ছে তার হাতেই।

২০০৭-০৮ মৌসুমে ৩১ গোল করে প্রথমবারের মতো ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার নিজের করে নেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। পরের মৌসুমে এই পুরস্কার জেতেন উরুগুইয়ান তারকা ডিয়েগো ফোরলান। এরপরে শুধু মেসি-রোনালদো দ্বৈরথ। মাঝে ২০১৫-১৬ মৌসুমে এই পুরস্কার জেতেন লুইস সুয়ারেজ। অবশ্য পরের মৌসুম থেকে আবারও লড়াইয়ে নাম লেখায় মেসি ও রোনালদো।
শেষ পর্যন্ত ২০১৯-২০ মৌসুমে চিরো ইম্মোবিলের কাছে হারানো সেই পুরস্কারটা আর নিজেদের করে নিতে পারেননি রোনালদো কিংবা মেসির কেউই।

Related Posts