গণফোরামের একাংশের সভাপতি ড. কামাল

গণফোরামের একাংশের সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন বাংলাদেশের সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা ড. কামাল হোসেন। শনিবার (১২ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে গণফোরামের বিশেষ কাউন্সিলে ড. কামাল হোসেনের অনুপস্থিতে সভাপতি হিসেবে তার নাম প্রস্তাব করেন দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সভাপতি মোকাব্বির খান।

এ সময় উপস্থিত সদস্য এবং কাউন্সিলররা প্রস্তাবে সমর্থন জানান। পরে মঞ্চ থেকে ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি ঘোষণা করেন মোকাব্বির খান। এতে হাততালি দিয়ে সমর্থন দেন গণফোরাম সদস্যরা। ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিযুক্তের পাশাপাশি সাধারণ সম্পাদকসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যদের তালিকা নির্ধারণে ২০ সদস্যের একটি সাবজেক্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই সাবজেক্ট কমিটি আলোচনার ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করবে বলে জানানো হয়। কাউন্সিলে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আ ও ম শফিক উল্লাহ রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক প্রস্তাব পাঠ করেন। গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে রেজা কিবরিয়া দলটির সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগের পর থেকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন আ ও ম শফিক উল্লাহ। তিনি বলেন, আমাদেরকে বুঝতে হবে এবং দেশের মালিক জনগণকে বুঝাতে হবে যে, চলমান দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়িত নেতিবাচক রুগ্ন-রাজনীতির ধারা অব্যাহত থাকলে, ক্ষমতাসীন সরকারের বিরুদ্ধে বৃহত্তর নেতিবাচক নির্বাচনী ফ্রন্ট বা জোট গঠন করে অতীতের মত রাষ্ট্র ক্ষমতার পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব। কিন্তু জনগণের কল্যাণমুখী অর্থনীতি ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক অধিকারসমূহ নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। গত বছর ৩ ডিসেম্বর গণফোরামের সাবেক কার্যকরী সভাপতি আবু সাইয়িদ, সুব্রত চৌধুরী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুর নেতৃত্বাধীন আরেকটি অংশ নতুন কমিটি ঘোষণা করে। আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ১৯৯৩ সালের ৪ নভেম্বর বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) থেকে বেরিয়ে আসা সাইফ উদ্দিন আহমেদ মানিককে সঙ্গে নিয়ে গণফোরাম গঠন করেন কামাল হোসেন।

Related Posts