স্বাভাবিক হয়েছে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের যান চলাচল

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ সেতুর মেরামত কাজ সম্পন্ন হওয়ায় দীর্ঘ ৫৮ ঘণ্টা পর বুধবার ( ১৪ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে সেতুটি দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এর ফলে বিকল্প সড়ক কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশে যানবাহনের চাপ কমতে শুরু করেছে। ফলে স্বাভাবিক হয়েছে  কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের যান চলাচল

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) সকাল থেকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাদুঘর, রামরাইল, ঘাটুরা, সুহিলপুর এবং বিশ্বরোড এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, যানবাহনের কোনো দীর্ঘ সারি নেই। স্বাভাবিকভাবেই অভ্যন্তরীণ সড়কে যানবাহন চলাচল করছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১২ জুলাই সকাল থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ জেলার লাঙ্গলবন্দ সেতুর ডেক স্ল্যাবের একাংশের মেরামত কাজ শুরু হয়। এরপর ওই দিন রাত ১০টার পর থেকে পুরোপুরি সড়কটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফলে বিকল্প সড়ক হিসেবে কাঁচপুর-ভুলতা-নরসিংদী-ভৈরব ব্রিজ-সরাইল-ব্রাহ্মণবাড়িয়া-কুমিল্লা ময়নামতি মহাসড়ক হয়ে যানবাহন চলাচল করছিল।  এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশে মহাসড়কের ৫০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। ভোগান্তির শিকার হয়ে হাজার হাজার পণ্যবাহী যানবাহনের চালক এবং কোরবানি পশুবাহী পাইকার এবং খামারিরা। তবে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় পরিবহনের যাত্রীদের ভোগান্তির মাত্রাছিল অনেকাংশে কম। এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর ট্রাফিক বিভাগের ইনচার্জ দেবব্রত কর জানান, সোমবার (১২ জুলাই) সকাল থেকেই কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশে যানবাহনের চাপ বাড়তে থাকে। পরে ১৩ জুলাই সকালে পুরো মহাসড়কজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ থেকে জেলার কসবা উপজেলার কালামুড়িয়া পর্যন্ত অন্তত ৫০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে থেমে থেমে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। তিনি জানান, যানজট নিরসন করতে গিয়ে সীমিত লোকবল নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ট্রাফিক বিভাগকে রাতদিন কাজ করতে গিয়ে বেশ হিমশিম খেতে হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ জেলার নাঙ্গলবন্দ সেতুর মেরামত কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর সন্ধ্যার পর থেকে সেতুটি সব ধরনের যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। এরপর থেকে বিকল্প সড়ক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অংশে যানবাহনের চাপ কমতে থাকে। মধ্যরাতের পর থেকে যানবাহনের চাপ অনেকাংশে কমে যাবে। বৃহস্পতিবার সকালে মহাসড়কের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

Related Posts