এখনও জ্বলছে তুরস্কের ৬ প্রদেশে দাবানল

নয় দিনে তুরস্ক ৪৪ প্রদেশে ১৯১টি দাবানল নেভাতে পেরেছে। এখনও দেশটির ছয় প্রদেশের ১৩ জায়গায় দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। বৃহস্পতিবার দেশটির কৃষি ও বনমন্ত্রী বেকির পাকদেমিরলি এ তথ্য জানান।  খবর আনাদোলুর। তিনি বলেন, ৯ দিনে ৪৪ প্রদেশে এ পর্যন্ত ১৯১টি দাবানল নেভানো সম্ভব হয়েছে।  এখনও আদানা, আনতালিয়া, আইদিন, দেনিজলি, ইস্পার্টা এবং মুগলার বিভিন্ন এলাকায় ১৩টি দাবানল জ্বলছে।

সরকারি তথ্যমতে, ২৮ জুলাই থেকে ছড়িয়ে যাওয়া দাবানলে এ পর্যন্ত আটজনের মৃত্যু হয়েছে। পাকদেমিরলি এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমরা ১৬টি প্লেন, ৫৬ হেলিকপ্টার এবং ৮৫০টি অগ্নিনির্বাপক গাড়ির সাহায্যে দাবানল নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছি। তুরস্কের কৃষি ও বনমন্ত্রী বলে, আগুন নেভানোর কাজে তুরস্ককে বিভিন্ন দেশ সহযোগিতা করছে।  দাবানল নেভাতে রাশিয়া পাঁচটি প্লেন ও তিনটি হেলিকপ্টার, ইউক্রেন তিনটি প্লেন ও চারটি হেলিকপ্টার, স্পেন দুটি উভচর প্লেন, একটি উভচর প্লেন ক্রোয়েশিয়া এবং আজারবাইজান একটি প্লেন ও দুটি হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, দাবানলের কারণে ইতোমধ্যে তিন হাজার ৭১৪ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া কৃষিজমি, গবাদিপশু, কৃষি অবকাঠামো, কৃষি যন্ত্রপাতি এবং শস্য পুড়ে গেছে। সংবাদ সম্মেলনে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সুয়ালো বলেন, আগুনের হাত থেকে রক্ষা করতে মুগলা প্রদেশের ৩৬ হাজার ৩৬৫ জনকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এর আগে এক সাক্ষাৎকারে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান দাবানলকে করোনাভাইরাসের মতো বিশ্বের জন্য হুমকি হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন। টিভিতে সরাসরি প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে এরদোগান বলেন, পুরো বিশ্ব এখন এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে, এটি সন্ত্রাসী ‘হুমকির মতো’।