ইউক্রেনের অস্ত্র বহর রক্ষা করবে ন্যাটো

রাশিয়ার সামরিক অভিযানের বিরুদ্ধে ইউক্রেনকে দেওয়া অস্ত্র বহরের সুরক্ষা নিজেরাই নিশ্চিত করবে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো। এমনটাই দাবি করেছেন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা কর্মকর্তারা।

রোববার (১৩ মার্চ) এক বিবৃতিতে ইউক্রেনের নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা পরিষদের (ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যান্ড ডিফেন্স কাউন্সিল) প্রধান ওলেক্সি দানিলোভ বলেন, রুশ বাহিনী যদি ইউক্রেনের পথে থাকা পশ্চিমা অস্ত্র বহরে হামলা চালায়, ‍ওই হামলাকে জোটের সংবিধানের আর্টিকেল ৫-এর লঙ্ঘন হিসাবে বিবেচনা করবে ন্যাটো। আর্টিকেল-৫-এ ন্যাটোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর আত্মরক্ষার নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে।  চলমান যুদ্ধে রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়তে ইউক্রেনকে অস্ত্র সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো। এসব অস্ত্র ব্যবহার করে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী দেশটির বিভিন্ন স্থানে রুশ বাহিনীর হামলা প্রতিরোধ করছে। এই পরিস্থিতিতে দেশটিতে পশ্চিমা অস্ত্র ও অস্ত্র সরবরাহের বহরে হামলার হুমকি দিয়েছে রাশিয়া। শনিবার রুশ রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে দেশটির উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকোভ বলেন, ‘ইউক্রেনে অস্ত্র পাঠানোর বিষয়টি খুবই বিপদজনক। এটা আমরা ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে জানিয়েছি। সতর্ক করা হয়েছে, অস্ত্র সরবরাহের এসব বহর রুশ হামলার বৈধ লক্ষ্যবস্তু হতে পারে।’ রুশ উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘ইউক্রেনের সেনাদের কাঁধে বহনযোগ্য আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, ট্যাংক ধ্বংস করার ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করছে পশ্চিমারা। এসব ছোট ছোট অস্ত্রের স্থানান্তরের পরিণতি সম্পর্কে তাদের সতর্ক করা হয়েছে। তবে ওয়াশিংটন এ সতর্কতা খুব একটা আমলে নেয়নি বলেই মনে হচ্ছে।’  এ সময় সের্গেই রিয়াবকোভ জানান, ইউক্রেনের পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করছে না রাশিয়া। রাশিয়ার উপপররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই প্রচ্ছন্ন হুমকির কয়েক ঘণ্টা পর রোববার এক সাক্ষাৎকারে ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গকে উদ্ধৃত করে ওলেক্সি দানিলোভ বলেন, ‘আজ ন্যাটো প্রধান স্টলটেনবার্গ বিবৃতিতে দিয়েছেন: যদি একটা মাত্র রকেট কিম্বা বুলেটও অস্ত্র বহরে আঘাত হানে, ন্যাটো এটাকে আর্টিকেল-৫ এর ওপর হামলা হিসাবে বিবেচনা করবে।’ তবে ন্যাটো কিম্বা এর প্রধান স্টনটেনবার্গ দানিলোভের এই বিবৃতির সত্যতা নিশ্চিত করে পৃথক কোনো বিবৃতি দেন নি।

 

Related Posts