আবারও ভারত-চীন উত্তেজনা

ফের চীন-ভারত উত্তেজনা । সীমান্তে সংঘাতের জন্য এবার নয়াদিল্লিকে দায়ী করেছে বেইজিং।

একইসঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করেছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। যদিও বিষয়টি নিয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

২০২০ সালে লাদাখ সীমান্তে সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে ভারত ও চীনের সেনারা। এরপর থেকেই দুই দেশের মধ্যে বাড়তে থাকে উত্তেজনা। যুদ্ধের আশঙ্কাও তৈরি হয়। উত্তেজনা নিরসনে গত দেড় বছরে দফায় দফায় আলোচনায়ও বসে দুই দেশের প্রতিনিধি দল।

চলতি সপ্তাহেই সীমান্তে উত্তেজনার জন্য চীনকে দায়ী করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। বলেন, দেশটিই সীমান্তে সেনা মোতায়েনসহ নতুন অবকাঠামো নির্মাণ করেছে।
মঙ্গলবার ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সংবাদ সম্মেলনে মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন জানান, উত্তেজনা নিরসনে বেইজিং আগে পদক্ষেপ নিয়েছে। আগামীতে আলোচনার মধ্য দিয়ে সংকট সমাধান হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ওয়েনবিন বলেন, আমরা এর আগে একাধিকবার আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করেছি। লাদাখ সীমান্তে যা হয়েছে, তার জন্য কোনোভাবেই চীন দায়ী নয়। তবে সঙ্কট সমাধানে ভারতের সাথে আমরা আলোচনা অব্যাহত রাখবো। আশা করছি, তারাও সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবে।
২০২০ সালের জুনে ওই সংঘাতে ভারতে সেনাবাহিনীর ২০ সেনা ও ৪ চীনা সেনা নিহত হয়েছিলেন।

Related Posts