অলিম্পিকের মঞ্চে খেলবে বিল গেটসের হবু জামাতা

দীর্ঘ ৬০ বছর পর অলিম্পিকের ইকুয়েস্ট্রিয়ান (ঘোড়দৌড়) ইভেন্টে খেলার সুযোগ পেয়েছে মিসর। ২০১৯ সালে মরক্কোতে হওয়া এফইআই নেশন কাপে ভালো করে অলিম্পিকে জায়গা করে নিয়েছে দেশটি। আজ অনুষ্ঠিত হবে সেই বহুল প্রত্যাশিত ইভেন্ট। সবচেয়ে অবাক করা ব্যাপার হচ্ছে, মিসরের এই অলিম্পিক দলের খেলায় তাদের সবচেয়ে বড় সমর্থক বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী বিল গেটস। কারণ এই দলে যে খেলবেন তার হবু জামাই!

মিসর ইকুয়েস্ট্রিয়ান দলের অন্যতম সদস্য বিল গেটসের হবু জামাই নায়েল নাসার। বিল গেটসের মেয়ে জেনিফার গেটসের বাগদত্তা তিনি। হবু জামাইকে নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাস গত ৩১ জুলাই জানিয়ে রেখেছেন বিল গেটস। সেদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে নায়েল নাসারের একটি ইভেন্টের ছবি দিয়ে গেটস লিখেছেন, ‘টোকিওতে অনেক অ্যাথলেটকেই সমর্থন দিচ্ছি। সবচেয়ে বেশি সমর্থন পাচ্ছে আমার হবু মেয়ের জামাই, নায়েল নাসার। শুভকামনা, নায়েল।’
এদিকে, মিসরের ইকুয়েস্ট্রিয়ানরা দল হিসেবে খেলবেন আগামী ৬ আগস্ট। সেদিনই দল হিসেবে মোহামেদ তাহের জিয়াদা, সামেহ আল দাহান, আবদুল কাদের সাঈদ ও নায়েল নাসার কেমন করেন সেটা দেখা যাবে। তবে এর আগে আজ এককের হিটে নামবেন নায়েল নাসার। বিল গেটসের মেয়ে জেনিফার ও নাসার গত বছরের জানুয়ারিতে বাগদানের ঘোষণা দেন। জানা গেছে, শিগগিরই দুজন বিয়ে করবেন। নাসার একজন পেশাদার ইকুয়েস্ট্রিয়ান (ঘোড়দৌড়বিদ)। জানা গেছে, নায়েলের জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় অঙ্গরাজ্যের শিকাগো শহরে। তবে বেড়ে ওঠা কুয়েতে। ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় জেনিফার গেটসের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। নায়েল ঘোড়দৌড়বিদ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। তবে বিয়ের পর ঘোড়দৌড়কেই নিজের ভবিষ্যতের পথ করবেন নাকি অন্য কোনো পেশা বেছে নেবেন, তা এখনো ঠিক করেননি। নায়েল নাসেরের পারিবারিক আর্কিটেকচার ফার্ম রয়েছে। নায়েলের বয়স যখন পাঁচ বছর তখন থেকেই সে ঘোড়ায় চড়ছে। নিজের প্রথম ঘোড়া পায় ১০ বছর বয়সে। ছোটবেলা থেকেই তার ঘোড়দৌড়ের সখ। স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেছেন নায়েল নাসার। ইংরেজি, ফরাসি ও আরবিতে সাবলীল। আর জেনিফার ২০১৮ সালে স্ট্যান্ডফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে থেকে হিউম্যান বায়োলজিতে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেছেন। তবে তারা বেশির ভাগ সময় একসঙ্গে কাটিয়েছেন ঘোড়দৌড়ের ময়দানেই। 

Related Posts