অবৈধ সম্পদ অর্জন: ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি টেকনাফ মডেল থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ মুন্সী আবদুল মজিদের আদালতে এ সাক্ষ্যগ্রহণ হয়। এর আগে একই আদালতে ওসি প্রদীপ কুমারের স্ত্রী চুমকি কারনের বিরুদ্ধেও সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছিল। একই মামলায় চুমকি পলাতক থাকলেও ওসি প্রদীপ কুমার চার্জ গঠনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিভিশন করার কারণে সাক্ষ্যগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। আদালতে দুদকের আইনজীবী মাহমুদুল হক মাহমুদ বলেন, অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের মামলায় ওসি প্রদীপ কুমার দাশের বিরুদ্ধে সোমবার বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। প্রথমদিনে আদালতে ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে তিনজন সাক্ষী দিয়েছেন। আগামী ৭ এপ্রিল সাক্ষীর জন্য পরবর্তী দিন ধার্য রেখেছেন আদালত। সাক্ষীগ্রহণ চলাকালে আদালতে ওসি প্রদীপ উপস্থিত ছিলেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৩ আগস্ট দুদক চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন বাদি হয়ে মামলাটি করেন। মামলায় প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারণের বিরুদ্ধে প্রায় চার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছিল। এর মধ্যে ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৫ হাজার ৬৩৫ টাকা ‘ওসি প্রদীপ’ ঘুস-দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জন ও আরও ১৩ লাখ ১৩ হাজার ১৭৫ টাকার সম্পদের তথ্য দুদকে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে গোপন করা হয় বলে ওই মামলা অভিযোগ করা হয়। তদন্ত শেষে গত বছরের ২৬ জুলাই মো. রিয়াজ উদ্দিন ওই মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। গত ১ সেপ্টেম্বর অভিযোগপত্রের ওপর শুনানি হয়। গত ২৯ জুন দুপুরে চট্টগ্রামের সিনিয়র স্পেশাল জজ ও মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালত প্রদীপ কুমার দাশের অবৈধ সম্পদ দেখভালের দায়িত্ব কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসককে দেন। এর আগে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারনের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় চার্জ গঠন করে আদালত।

Related Posts